যশোর মুড়ালি জোড়া শিব মন্দিরে প্রথমবার দুর্গোৎসব

যশোর: তিনশ বছর পরিত্যক্ত থাকার পর মুড়ালি শিব মন্দিরের সংস্কার কাজ শেষে শারদীয় দুর্গোৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। প্রাচীন স্থাপত্য শিল্পের নিদর্শন এ মন্দিরে প্রথমবারের মতো দুর্গোৎসবের আয়োজন করায় আশপাশ এলাকায় উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। এর আগে এখানে শিব পূজা করা হলেও দুর্গা পূজা হতো না।

সনাতন ধর্ম সংঘের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অখিল কুমার চক্রবর্তী জানান, রাজা লক্ষ্মণ সেনের আমলে ১১৮৯ খ্রিস্টাব্দে প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন মুড়লি জোড়া শিব মন্দিরটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি প্রায় ৩শ বছর পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে ছিল। গত বছর জেলা প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে সনাতন ধর্ম সংঘ সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব নেয়। মন্দির দুটি সংস্কার করে ৮২৪ বছর আগের সেই স্থাপত্য শৈলীতে দৃষ্টিনন্দন করে তোলা হয়েছে। নান্দনিক নকশা ও চুন সুড়কিতে দৃষ্টিনন্দন রুপ ধারণ করেছে মন্দির দুটি।

এ বছর ২৫ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে মন্দিরের দ্বারন্মোচন করা হয়। নতুন রুপে মন্দির দুটি পেয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আগ্রহে এবারই প্রথম এ মন্দিরে শারদীয় দুর্গোৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। এর আগে এখানে শুধু শিব পূজা করা হতো।

পূজা উপলক্ষে পাঁচদিনের অনুষ্টানমালায় রয়েছে দেবীর ষষ্ঠী কল্পারম্ভ, বোধন, নিমন্ত্রণ অধিবাস, মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্জ্বলন,আলোচনা, শ্রী শ্রী চণ্ডীপাঠ, সন্ধিপূজা, মাতৃ সঙ্গীত।