বেনাপোল চেকপোস্ট কর্মকর্তা কর্মচারীদের ছুটি বাতিল

বেনাপোল প্রতিনিধি:যাত্রী পারাপারের সুবিধার্থে বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্টে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুর্গা পূজা ও ঈদ-উল-আযহার ছুটি বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ।
এবার পূজা, ঈদ ও সাপ্তাহিক ছুটি মিলে নয় দিনের টানা ছুটি থাকলেও অতিরিক্ত যাত্রী পারাপারের জন্য সংশ্লিষ্ট সব বিভাগের কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন বেনাপোল শুল্ক ভবনের যুগ্ম কমিশনার সাইদুর রহমান।
তিনি জানান, “পূজা ও ঈদের কারণে চেকপোস্ট দিয়ে বৈধ পথে যাত্রী পারাপার বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। যাত্রীদের সুবিধার কথা মাথায় রেখেই চেকপোস্টে কর্মরত কাস্টমস, ইমিগ্রেশন পুলিশ ও বিজিবির কর্মকর্তা কর্মচারীদের সব ধরনের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।”
বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের পরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম জানান, বৃহস্পতিবার বেনাপোল দিয়ে ৩ হাজার ২৬৭ জন পাসপোর্টধারী যাত্রী ভারত-বাংলাদেশ যাতায়াত করেছেন। এর মধ্যে ভারত গেছেন ১৮৮৬ জন আর দেশে ফিরেছেন ১৩৮১ জন।
বুধবার পারাপার হয়েছেন ৩ হাজার ১১৩ জন যাত্রী, যাদের মধ্যে ভারত গেছেন  ১৫৮১ জন, ফিরেছেন ১৫৩২ জন। মঙ্গলবার পারাপার হয়েছেন ২ হাজার ৩৩৭ জন যাত্রী। তাদের মধ্যে ভারত গেছেন ১৩০২ জন।
এভাবে পূজা ও ঈদের কারণে চেকপোস্ট দিয়ে প্রতিদিনই যাত্রী পারাপার বাড়ছে। ১৫ দিন আগেও প্রতিদিন দেড় হাজার যাত্রী পারাপার হতো বলে জানান জাহাঙ্গীর আলম।
১১ ও ১২ অক্টোবর সাপ্তাহিক ছুটি, ১৩ ও ১৪ অক্টোবর দূর্গা পূজার ছুটি, ১৫ থেকে ১৭ অক্টোবর ঈদের ছুটি এবং ১৮ ও ১৯ অক্টোবর আবারো সাপ্তাহিক ছুটি রয়েছে।
এদিকে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ হওয়ায় ভারত থেকে আসা পণ্যবাহী কয়েক হাজার ট্রাক বেনাপোল বন্দরে আটকা পড়েছে। তবে চেকপোস্ট দিয়ে যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।
এবিষয়ে বেনাপোল স্থলবন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) তোফাজ্জেল হোসেন বলেন, লম্বা ছুটির কারণে দুদেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বন্দরে আসা ভারতীয় ট্রাক পণ্য খালাসের পর ফেরত যেতে পারবেনা।