যশোর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন হবে শব্দ ও শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত : মহাপরিচালক

নিজস্ব প্রতিবেদক:যশোর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন হবে শব্দ ও শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। ১৩-১৪ অর্থ বছর থেকে ৪ লাখ টাকা বাজেট থাকবে একাডেমি পরিচালনার জন্যে। গতকাল সন্ধ্যায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালনা লিয়াকত আলী লাকি যশোর জেলা শিল্পকলা একাডেমির কার্যকরী সদস্যসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন। জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন একাডেমি পরিচালনা পরিষদের সহ-সভাপতি আবু সালেহ তোতা। মহাপরিচালক বলেন, যশোরসহ ৬টি শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন হবে শব্দ ও শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। তিনি বলেন দেশের ৪৪টি একাডেমি ভবন সংস্কার এবং ১৬টি জেলা শিল্পকলা একাডেমি নির্মাণ করা হবে। তিনি বলেন, ৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংস্কৃতির উৎকর্ষ সাধনের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠা করেন শিল্পকলা একাডেমি, কিন্তু বিগত ৩৫/৩৬ বছরে এ প্রতিষ্ঠানটিকে অকার্যকর করে রাখা হয়েছে। বর্তমান সাংস্কৃতিক বান্ধব মহাজোট সরকার এ প্রতিষ্ঠানটিকে কার্যকর করতে বিশেষ নজর দিচ্ছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন পদে সাড়ে ৬শ’ লোক নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। হারিয়ে যাওয়া সংস্কৃতির ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে নেয়া হচ্ছে বিভিন্ন কার্যক্রম। তিনি বলেন, পুতুল নাচের ৫২টি দলের রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। যাত্রা পালার ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। মতবিনিময় সভায় শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন একাডেমি পরিচালনা পর্ষদের সাধারণ সম্পাদক মাহামুদ হাসান বুলু। জেলা কালচারাল অফিসার সুজিত কুমার সাহা, পরিষদ সদস্য হারুন-অর-রশিদ, সুকুমার দাস, ডিএম সাহিদুজ্জামান, দীপংকর দাস রতন, সানোয়ার আলম খান দুলু, হিমাদ্রী সাহা, রওশন আরা রাসু, সাজ্জাদ গণি খাঁন রিমন, চঞ্চল সরকার, চাঁদের হাটের সংগঠক ফারাজী আহম্মেদ সাঈদ বুলবুল, একরামুল হক ফকু, নিবাস কুমার মণ্ডল অখিল চক্রবর্তীসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন এবং মতামত ব্যক্ত করেন।