যশোরে এক হজ রিক্রুটিং এজেন্সির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক:সান স্টার সার্ভিস লিমিটেড হজ রিক্রুটিং এজেন্সির পরিচয়ে অবৈধভাবে আমেরিকা ও কানাডায় লোক পাঠানোর নামে প্রতারণা ব্যবসা শুরু হয়েছে যশোরে। এরই মধ্যে ২২ জনের কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা করে তারা নিয়েছে। তাদের প্রতারণার ফাঁদে আর কেউ যেন না পড়ে সে ব্যাপারে সচেতন থাকার আহবান জানিয়েছেন সান স্টার সার্ভিসের যশোরের সাবেক রিজিওন্যাল ম্যানেজার আল মামুনুর রশীদ। রোববার প্রেসক্লাব যশোরে অনুষ্ঠিত এক সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, পাঁচ মাস আগে তিনি রিজিওন্যাল ম্যানেজার পদে যশোর শহরের জেস টাওয়ার অফিসে যোগদান করে। এ অফিসে কর্মকর্তা-কর্মচারী মিলে ১০ জন কাজ করে। এদের এক মাত্র কাজ হলো হজে লোক পাঠানো। হজ মৌসুম শেষ হওয়ায় সান স্টার সার্ভিসের মালিক তালুকদার শাহিরুল ইসলাম তাকে প্রধান অফিসে ডেকে পাঠান। প্রধান অফিসের অপর দুই কর্মকর্তা শারমিন শাহানাজ ও সিরাজুল ইসলামের উপস্থিতিতে আল মামুনুর রশীদকে আমেরিকা ও কানাডা যেতে ইচ্ছুক লোক সংগ্রহ করার তাগিদ দেন শাহিরুল ইসলাম। জন প্রতি ২০ লাখ টাকা খরচ হবে বলে তিনি জানিয়ে দেন। এ টাকা আমেরিকা কানাডা যাওয়ার পর কিস্তিতে পরিশোধ করা যাবে বলেও তিনি জানান। এর মধ্যে আল মামুনুর রশীদ যশোর ফিরে ২২ জনের কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা করে ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা হেড অফিসের হিসাব নম্বরে জমা দেন। এরপর মালিক শাহিবুল ইসলাম সম্পূর্ণ টাকা সংগ্রহ করে জমা দেয়ার জন্য তাগিদ দেন তাকে। এতে আমেরিকা কানাডায় গমন ইচ্ছুক ব্যক্তিদের সন্দেহ হওয়ায় আল মামুনুর রশীদ ম্যান পাওয়ার ব্যবসায় লাইসেন্স ও সংশ্লিষ্ট দেশে যাওয়ার অনুমতি পত্র চান প্রধান অফিসে। ৮ অক্টোবর সান স্টার সার্ভিসের মালিক শাহিরুল ইসলাম যশোর আসেন। তার চাহিদা মত লোক ও টাকা সংগ্রহ করে দিতে ব্যর্থ হওয়ায় শাহিরুল ইসলাম তার উপর ক্ষিপ্ত হন। পরবর্তীতে তিনি আল মামুনুর রশীদকে না জানিয়ে আনোয়ার হোসেন টিটো নামে এক ব্যক্তিকে ওই পদে নিয়োগ দেন। আল মামুনুর রশীদ জনশক্তি ব্যুরো ও বিভিন্ন ওয়েব সাইডে অনুসন্ধান চালিয়ে বৈধ রিক্রুয়েটিং অফিসের নাম ঠিকানার মধ্যে সান স্টারের নাম খুঁজে পাননি। তারা অবৈধভাবে এ ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। এ ব্যাপারে যশোরবাসীকে সতর্ক থাকার আহবান ও প্রশাসনকে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন তিনি। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সান স্টার সার্ভিস যশোর অফিসের ম্যানেজার আব্দুর রাজ্জাক, গোলাম কাদিরুজ্জামান হিরো, বদিউজ্জামান, মাওলানা মামুনুর রশীদ প্রমুখ।