নামাজ আদায় আর কোরবানিতে শুরু ঈদ উৎসব

স্পন্দন ডেস্ক: শরতের ভোরে ঠান্ডা হাওয়া আর মিষ্টি রোদের মাখামাখি। মাঝে মাঝে রোদ কিছুটা তেজ দেখালেও সকালটা সহনীয়। প্রকৃতির সহজ সমীকরণের সৃষ্টি এ মিষ্টি সকালকে সঙ্গী করে বুধবার ঈদ আনন্দে মেতেছে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের মানুষ।

ব্যাপক আনন্দ, উচ্ছ্বাস আর ত্যাগের মহিমায় ও যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য্যরে মধ্য দিয়েই চট্টগ্রামে পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আযহা। যথারীতি নামাজ আদায়ের মধ্য দিয়েই সকালে শুরু হয় ঈদুল আযহার আনুষ্ঠানিকতা।

নামাজ আদায় শেষে বিবদমান বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে ত্যাগের মহিমায় রাজনীতিকদের আত্মশুদ্ধি এবং ঐক্যবদ্ধ থাকার অঙ্গীকারের কথা বলেছেন।

চট্টগ্রাম নগরীতে সিটি কর্পোরেশনের তত্তাবধানে ঈদুল আযহার প্রথম ও প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে সকাল পৌনে ৮টায় জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ ময়দানে। এতে ইমামতি করেন মসজিদের খতিব ও জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার অধ্য মওলানা মুহাম্মদ জালালুদ্দিন আল কাদেরী।

একই স্থানে সকাল সাড়ে ৮ টায় আরও একটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ইমামতি করেন জমিয়তুল ফালাহ্’র জ্যেষ্ঠ ইমাম মাওলানা নূর মোহাম্মদ সিদ্দিকী।

এবার সিটি কর্পোরেশনের তত্তাবধানে এবার ১৪৯টি এবং জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে ৮২টি সহ নগরীতে এবার মোট ২৩৩ টি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকাল ৮টায় এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে একই সময়ে আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদে ঈদ জামাত হবে।

নগরীর জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ ময়দানে চট্টগ্রামের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী-শিল্পপতি সহ নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে আসা কয়েক হাজার মুসল্লীর সমাগম ঘটে।

সেখানে প্রথম ঈদ জামাতে নামাজ আদায় করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী ডা.আফসারুল আমিন, বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আবদুল্লাহ আল নোমান, চট্টগ্রামের মেয়র এম মনজুর আলম, সাংসদ নূরুল ইসলাম বিএসসি, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেস্টা কাউন্সিলের সদস্য মীর মো.ন‍াছিরউদ্দিন চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, নগর বিএনপির সহ সভাপতি আবু সুফিয়ান, নগর জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক সোলায়মান আলম শেঠ, চসিকের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনীসহ আরও বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী-শিল্পপতি ও সাধারণ মুসল্লীরা।

জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদের ঈদ জামাতে বাঁশের ঘেরা দিয়ে ভিআইপিদের জন্য আলাদা জায়গা তৈরি করা হলেও মানুষের চাপে শেষ পর্যন্ত ত‍া আর টেকেনি। নামাজ আদায় শেষে ধনী, গরীব, মন্ত্রী, নেতা, সাধারণ জনতা সবাই পরস্পরের সঙ্গে কোলাকুলি করেন।

এদিকে নামাজ আদায়ের পরপরই সকাল সাড়ে আটটা থেকে নগরীর বিভিন্ন অলিগলি, রাস্তায় মাঠে, বাসাবাড়ির সামনে পশু কোরবানী শুরু হয়েছে। আর কোরবানির বর্জ্য অপসারণে সকাল থেকে প্রস্তুত দেখা গেছে সিটি কর্পোরেশনের সেবক ও গাড়ি।

ঈদ উপলক্ষে নগর ভবন সহ নগরীর বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী ভবনে আলোকসজ্জা করা হয়েছে। চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার, এতিমখানা এবং জেলা প্রশাসনের সমাজসেবা অধিদপ্তর পরিচালিত চট্টগ্রামের বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।