জঙ্গীবাদ ও তেঁতুল হুজুরদের বর্জন করতে হবে-তথ্যমন্ত্রী

জেলা প্রতিনিধি কুষ্টিয়া: লালনকে নিয়ে চর্চা করতে হলে সোচ্চার কণ্ঠে সাম্প্রদায়িকতা জঙ্গীবাদ তেঁতুল হুজুরদের বর্জন করার আহ্বান জানিয়েছেন, জাতীয় সমাজতান্ত্রীক দল (জাসদ) সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি।

তিনি বলেন, ‘সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গীবাদ ও তেতুল হুজুররা তেমনি ভাসমান কচুরিপনার মতো। কচুরিপানা যেমন বানের পানিতে ঢুকে ফসল নষ্ট করে, তেমনি সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গীবাদ এবং তেঁতুল হুজুররা দেশের ইতিহাস ঐতিহ্য নষ্ট করছে। সুতরাং যারা আমরা লালনের চর্চা করবো তাদের উচিত সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গীবাদ এবং তেতুল হুজুরদের বর্জন করা।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮ টায় কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার ছেউড়িয়ায় লালন একাডেমী আয়োজিত ৫ দিনব্যাপী লালন মেলার উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এসব কথা বলেন।

এসময় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট লালন গবেষক ও লেখক ড. আনোয়ারুল করিম, কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ, কুষ্টিয়া পৌর মেয়র আনোয়ার আলী, কুষ্টিয়া জজ কোর্টের পিপি অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম দুলাল, জেলা জাসদ সভাপতি গোলাম মহসীন, বাংলালিংকের কমিউনিকেশন সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মার্কেটিং আকিংত সুরেকা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেন।

আলোচনা সভা শেষে লালন সঙ্গীত পরিবেশন করে ফরিদা পারভীনসহ লালন একাডেমীর শিল্পীরা।
মরমী সাধক ফকির লালন শাহের ১২৩ তম তিরোধান দিবস উপলক্ষে কুষ্টিয়ায় লালনের আখড়ায় ৫ দিনব্যাপী লালন অনুষ্ঠান হচ্ছে। ১ কার্তিক বুধবার বাউলদের সাধু সংঘ শুরু হয়।

তবে তিরোধান দিবসের অনুষ্ঠান শুরু হলেও একই দিন ঈদুল আজহার কারণে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা আজ। সাধুসংঘকে ঘিরে আয়োজন করা লালন মেলা চলবে আগামী রোববার পর্যন্ত। পরে রাতে শুরু বাউল সঙ্গীত।