নাশকতার আশঙ্কায় চার জেলায় ১২ জামায়াত নেতা কর্মী আটক

স্পন্দন ডেস্ক:নাশকতার আশঙ্কায় বিভিন্ন স্থানে ১২ জামায়াত নেতা কর্মীকে আটক করা হয়েছে। এরমধ্যে বাগেরহাটের কচুয়ায় জামায়াতের আমীরসহ ৪ জন রয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো বিস্তারিত খবর :
কচুয়া  (বাগেরহাট) : কচুয়া উপজেলা জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ মাও. আলতাফ হোসেনসহ ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার দুপুরে উপজেলার খলিশাখালী গ্রামের জামায়াত নেতা মাহাতাব হোসেনের বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করে। অন্যরা হলো, কচুয়া উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি রফিকুল ইসলাম, বাধাল ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর সেখ নুরুল ইসলাম ও ধোপাখালী ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর আলী আকবর।
কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ খান জানান, উপজেলার খলিশাখালী গ্রামের মাহাতাবের বাড়িতে জামায়াতের নেতাকর্মীরা গোপন বৈঠক করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের আটক করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে জিহাদি বই ও সরকার বিরোধী লিফলেট উদ্ধার করা হয়।
এদিকে শুক্রবার রাত ১২ টার দিকে টহল পুলিশ সদর উপজেলার সুন্দরঘোনা গ্রামের আলী আহম্মেদের ছেলে রফিকুল ইসলাম(২৫), শেখ আলমগীর হোসেনের স্ত্রী আম্বিয়া বেগম (৪০) ও তার বোন ফকিরহাট উপজেলার কাঠালতলা গ্রামের শুকুর হাওলাদারের স্ত্রী খুর্শিদা বেগমকে(৩৮) পুলিশ আটক করে। বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এরশাদুল কবির চৌধুরী জানান, অসামাজিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে তাদের আটক করে শনিবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।
পাইকগাছা (খুলনা) ঃ পুলিশ উপজেলার চাঁদখালী ইউনিয়নের জামায়াতের দুই নেতাকে আটক করেছে। থানার এসআই হারুন-অর রশিদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শুক্রবার রাত দেড়টার সময় উপজেলার চাঁদখালী ইউনিয়নের উত্তর গড়ের আবাদ গ্রামের মৃত মোজাহার আলী সানার পুত্র আব্দুল বারি সানা (৫৫) ও একই গ্রামের মৃত আদিল উদ্দীনের পুত্র কামরুল ইসলামকে (৩৫) তাদের বাড়ি থেকে আটক করেন।
থানার অফিসার ইনচার্জ এমমশিউর রহমান জানান, আটকৃতরা গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও পুলিশের সরকারি কাজে বাধা প্রদান মামলার আসামি।
দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) ঃ দামুড়হুদার জয়রামপুর গ্রাম থেকে হাউলী ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর নজরুল ইসলামকে (৪০) পুলিশ গ্রেফতার করেছে।
পুলিশ জানায়, শনিবার সকাল ৬ টায় দামুড়হুদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহসান হাবিব গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে জয়রামপুর গ্রামে অভিযান চালায়। এসময় জয়রামপুর গ্রামের খোদাবক্স মন্ডলের ছেলে হাউলী ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর নজরুল ইসলামকে আটক করেন।
উল্লেখ্য, গত ১০ অক্টোবর বৃহস্পতিবার পুলিশের গুলিতে শিবির কর্মী রফিকুল ইসলাম নিহত, সরকারি কাজে বাধা ও পুলিশের উপরে হামলার অভিযোগে এসআই আফজাল হোসেন বাদী হয়ে জামায়াত শিবিরের ৬৩৯ জন নেতাকর্মীর নামে মামলা দায়ের করেন। আটককৃত নজরুল ইসলাম এ মামলার এজাহারভূক্ত আসামি।
কেশবপুর (যশোর) : কেশবপুর থানা পুলিশ শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে জামায়াতের দু’কর্মীকে আটক করে। তারা হলো, উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের হাফিজুর রহমান খাঁ (৩০) ও আসলাম উদ্দিন দফাদার (২৪)। পুলিশ জানায়, নাশকতা সৃষ্টির অভিযোগে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।