আসামি ধরছে না পুলিশ : দিনমজুর পান্না মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে

টিপু সুলতান, কালীগঞ্জ:ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌর কাউন্সিলর মার্জেদ আলীর ছেলে বিপ্লবের চাকুর আঘাতে দিনমজুর পান্না মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়েছে। টাকা লেনদেনকে কেন্দ্র করে পান্নাকে চাকু দিয়ে পেটে আঘাত করলে সে জখম হয়। তাকে প্রথমে যশোর ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজে হস্তান্তর করা হয়। সেখানে থেকে তাকে ঢাকা মহাখালী বক্ষব্যধী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় কাউন্সিলর মার্জেদ আলীর দু’ছেলে সবুজ ও বিপ্লব এবং ভাইয়ের দু’ছেলে সুমন ও হাবিবুর রহমান রসুলসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে কালীগঞ্জ থানায় আহত পান্নার মা খালেদা বেগম বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন। তবুও পুলিশ আসামি ধরছে না। বরং বাদি ও সাক্ষীদের হুমকি দিচ্ছে আসামিরা। আহত পান্না কালীগঞ্জের শিবনগর গ্রামের মৃত আবুল খায়ের রেজাউল ইসলামের ছেলে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩ অক্টোবর পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শিবনগর মোড়ে দিনমজুর দাউদ হোসেন পান্না আসা মাত্র পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা পৌর কাউন্সিলর মার্জেদ আলী ছেলে সবুজ পান্নাকে খুন করার হুকুম দেয়। হুকুমের পরপরই মার্জেদের অপর ছেলে বিপ্লব দিনমজুর পান্নার নাভীর বাম পার্শ্বে ধারালো চাকু দিয়ে ২ টি কোপ মারে। এতে সে রক্তাক্ত জখম হয়ে রাস্তার উপর পড়ে গেলে হাবিবুর রহমান ও সবুজ লোহার রড দিয়ে পান্নাকে পিটিয়ে চলে যায়। এ সময়  হাবিবুর রহমান রসুল আহত  পান্নার পকেটে থাকা ৬ হাজার টাকা নিয়ে যায়। গুরুতর আহত পান্নাকে এলাকাবাসী উদ্ধার করে তাকে যশোর হাসপাতালে ভর্তি করে। তার ফুসফুসে ও কিডনি ক্ষত হয়েছে বলে ডাক্তারগন জানান। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। কিন্তু ক্ষত স্থানে পুজসহ বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দিলে ডাক্তাররা তাকে ঢাকা মহাখালী বক্ষব্যধী হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন। বর্তমানে মহাখালী বক্ষব্যধী হাসপাতালে পান্না মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। অসহায় গরীব পরিবার তার চিকিৎসা করাতে পারছে না।
অপরদিকে মামলা করায় বাদি পান্নার মা খালেদা বেগম ও সাক্ষীগনকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে আসামিরা। মামলা তুলে না নিলে তাদেরকেও  একই অবস্থা করা হবে বলে বিভিন্ন স্থানে হুমকি দিচ্ছে আসামিরা।
এ ব্যাপারে পৌর কাউন্সিলর মার্জেদ আলীর ছেলে সবুজ জানান, ঘটনার সাথে আমরা জড়িত নয়। আমাদের নামে মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কালীগঞ্জ থানার এসআই শেখ মুজিবুর রহমান জানান, মামলা হয়েছে। তদন্ত চলছে তবে বাদি ও সাক্ষীদের হুমকি দিচ্ছে এ ধরনের কোন অভিযোগ আমার কাছে আসেনি।