দাকোপ প্রেসক্লাবে হামলা : নারী সাংবাদিক আহত

দাকোপ (খুলনা) প্রতিনিধি:দাকোপ প্রেসক্লাবের ভবন অবৈধভাবে দখল প্রচেষ্টায় জড়িত ভাড়াটিয়ার হাতে আহত হয়ে সাংবাদিক পারুল বেগম দাকোপ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার পরই দাকোপ থানা পুলিশ ও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ আহত সাংবদিককে দেখতে হাসপাতালে গিয়ে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সন্ধ্যার পর দাকোপ উপজেলা সদর চালনা হাসপাতাল ঘাট এলাকায় অবস্থিত দাকোপ প্রেসক্লাব ভবনের ভাড়াটিয়া সুরঞ্জন সাহা ও তার সহযোগী ২/৩ জন সন্ত্রাসীর হাতে আহত হন দাকোপ প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য ও দৈনিক জনতা এবং বাংলার খবরের দাকোপ প্রতিনিধি পারুল বেগম। ঘটনার সময় স্থানীয় সাংবাদিকরা ভাড়াটিয়া সুরঞ্জন সাহাকে ঘর ছেড়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়ে তাকে ঘর হতে বের হতে বলেন। সাংবাদিক পারুল বেগম তাকে এ অনুরোধ জানিয়ে ঘরে ঢোকার সাথে সাথে সুরঞ্জন সাহা ও তার সহযোগী সন্ত্রাসী বাহিনী তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। তাদের এলোপাতাড়ি মারপিটে গুরুত্বর আহত পারুল বেগম লুটিয়ে পড়লে সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়ে।
এ সংবাদ শুনে ওই রাতে দাকোপ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহম্মেদ কবির হোসেন, এসআই জয়নাল আবেদীন, দাকোপ উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক নারায়ন চন্দ্র সরকার আহত সাংবাদিককে দেখতে হাসপাতালে যান। এ ছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য ননী গোপাল মন্ডল বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করায় ঘটনার সংবাদ শুনে রাতেই মোবাইল ফোনে আহত সাংবাদিকের সাথে কথা বলে চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন।
বৃহস্পতিবার সকালে দাকোপ উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ আবুল হোসেন হাসপাতালে গিয়ে পারুল বেগমের চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন। এ সময় নেতৃবৃন্দ নারী সাংবাদিক আহত করার জঘন্য এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।
এদিকে দাকোপে কর্মরত সাংবাদিকরা ফুঁসে উঠেছে। তারা তাৎক্ষনিক ঘটনাটি স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের জানিয়ে ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছে। অন্যথায় সাংবাদিকরা আপামর দাকোপবাসীকে সাথে নিয়ে লাঘাতর আন্দোলনে নামার হুশিয়ারি দিয়েছে।
উল্লেখ্য, দাকোপ প্রেসক্লাব ভবনের ভাড়াটিয়া সুরঞ্জন সাহা জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে বর্তমানে ভবনের মালিক সাজার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন দরে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে তার বিরোধ চলে আসছে।