ইনিংস ও ৯২ রানে হারল পাকিস্তান

ক্রীড়া প্রতিবেদক: প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের ৯৯, আর দক্ষিণ আফ্রিকার ৫১৭ রান। দুবাই টেস্টে মিসবাহ উল হকের দল যে হারছে সেটা বলার অপেক্ষা ছিল না। কিন্তু আসাদ শফিকের প্রতিরোধ সত্ত্বেও ইনিংস ব্যবধানে হার এড়াতে পারল না পাকিস্তান। ইনিংস ও ৯২ রানে জিতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ১-১ ব্যবধানে সমতায় থেকে শেষ করল দক্ষিণ আফ্রিকা। এনিয়ে টানা সাত বছর বিদেশের মাটিতে টেস্ট সিরিজে অজেয় থাকল শীর্ষ র‌্যাঙ্কিং দলটি।
পাকিস্তান: প্রথম ইনিংস- ৯৯/১০, দ্বিতীয় ইনিংস- ৩২৬/১০
দক্ষিণ আফ্রিকা: প্রথম ইনিংস- ৫১৭/১০
ফল: ইনিংস ও ৯২ রানে দক্ষিণ আফ্রিকার জয়
সিরিজ: ১-১ ব্যবধানে ড্র
আগের দিন প্রোটিয়াদের চেয়ে ৪১৮ রানে পেছনে থেকে মধ্যাহ্ন বিরতির খানিকটা আগে খেলতে নেমে মাত্র দুই রানে দুই উইকেট হারিয়ে বসে পাকিস্তান। এরপর আজহার আলী (১৯) ও ইউনুস খানের (৩৬) ছোটখাটো অবদান শেষে আরেকটি ব্যাটিং লজ্জার হাত থেকে দলকে বাঁচায় মিসবাহ ও শফিকের জুটি। তৃতীয় উইকেটে অবিচ্ছিন্ন ৬২ রানের জুটি গড়ে দিনের খেলা শেষ করেছিল তারা।
শনিবার চতুর্থ দিনের খেলা খেলতে নেমেও দলকে আশায় রেখেছিলেন তারা। ব্যক্তিগত ২৮ রানে শফিক ও ৪২ রানে মিসবাহ মাঠে নামেন। প্রথম সেশনে দুজনেই নিজেদের ১২১তম বলে ফিফটির দেখা পান।
তাদের ১৯৭ রানের জুটি ভাঙে দ্বিতীয় সেশনে। ৮৮ রানে সাজঘরে ফেরেন মিসবাহ। পাকিস্তান অধিনায়ক মাঠ ছাড়লে আর কেউই শফিককে সঙ্গ দিয়ে যেতে পারেননি।
ক্যারিয়ারের চতুর্থ টেস্ট শতক পাওয়া শফিক জেপি ডুমিনির বলে ডি ভিলিয়ার্সের কাছে স্ট্যাম্পিং হলে গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। ৩২০ বলে ১৫ চার ও এক ছয়ে ১৩০ রানের সেরা ইনিংস খেলেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।
আগের ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেওয়া ইমরান তাহির প্রোটিয়াদের পক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে তিন উইকেট দখল করেন। ডুমিনি নেন তিনটি উইকেট। একটি করে পেয়েছেন ডেল স্টেইন, ডিন এলগার ও ভারনন ফিল্যান্দার।
প্রোটিয়াদের হয়ে প্রথম ইনিংসে ২৩৪ রান করেন অধিনায়ক গ্রায়েম স্মিথ। ১৬৪ রান আসে ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাটে।