বাঘারপাড়ার গৃহবধূকে লেবাননে পাচারের অভিযোগে ট্রাইব্যুনালে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোরের বাঘারপাড়ার জহুরপুর গ্রামের এক গৃহবধূকে লেবাননে পাচারের অভিযোগে তিনজনকে আসামি করে মানব পাচার অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা হয়েছে।
মঙ্গলবার জহুরপুর গ্রামের মৃত আবু সায়েদের ছেলে হারুন মিয়া বাদী হয়ে এ মামলা করেন। আসামিরা হলো, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের তত্তিপুর গ্রামের আব্দুল আজিজ বিশ্বাস ও তার ছেলে সেলিম বিশ্বাস এবং আমির মোল্যার ছেলে আব্দুর রহমান। আদালতের বিচারক অভিযোগটি গ্রহণ করে এজাহার হিসেবে গণ্য করার আদেশ দিয়েছেন বাঘারপাড়ার ওসিকে।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, জহুরপুর গ্রামের হারুন মিয়ার পাশের গ্রামের বাসিন্দা আসামিরা। তারা কম খরচে লেবাননে সরকারের মাধ্যমের বেবি সিস্টার পদে নিয়োগে দিয়ে মহিলা পাঠাচ্ছে বলে জানায়। একই সাথে আব্দুল আজিজের স্ত্রী সেখানে চাকরি করে এবং তাদের দেখাশুনা করবে বলে আশ্বাস দেয়। তাদের কথায় বিশ্বাস করে হারুন তার স্ত্রীকে লেবাননে পাঠানোর উদ্দেশ্যে আসামিদের ৬০ হাজার টাকা দেন। আসামিরা তার স্ত্রীকে গত ১২ এপ্রিল সকালে বাড়ি থেকে লেবাননের উদ্দেশ্যে নিয়ে যায়। ১৫ দিন পর আসামিরা বাড়ি এসে জানায় সে লেবাননে পৌঁছে গেছে এবং চাকরিতে যোগ দিয়েছে। ৩০ মে দুপরে হারুনের স্ত্রী ফোন করে জানায়, আসামির মানব পাচার দলের সদস্য। তারা তাকে লেবাননে নিয়ে বিক্রি করে দিয়েছে। তার উপর অমানুষিক নির্যাতন করছে। এ কথা শুনে হারুন আসামিদের কাছে যেয়ে বিষয়টি জানতে চাইলে তারা তার স্ত্রীকে উদ্ধারের জন্য দুই লাখ টাকা দাবি করে। এ ব্যাপারে মামলা করলে তাকে খুন জখম করা হবে বলে হুমকি দিয়ে আসামিরা তাড়িয়ে দেয়। স্ত্রীকে উদ্ধারে ব্যর্থ হয়ে হারুন বাদী হয়ে আদালতে এ মামলা করেন।