যশোরে এমএম কলেজ ক্যাম্পাসে দম্পতিকে মারপিট

নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোর সরকারি মাইকেল মধুসূদন (এমএম) কলেজ ক্যাম্পাসে মোর্শেদুল ইসলাম (৪০) ও স্ত্রী আফরোজা খাতুন (৩৫) মারপিটের শিকার হয়েছেন। এতে মোর্শেদুলের এক হাত ভেঙে গেছে। দম্পতির অভিযোগ, জামায়াত আখ্যা দিয়ে আসাদ হল থেকে বেরিয়ে এসে কয়েকজন উচ্ছৃঙ্খল যুবক তাদের ওপর চড়াও হয়।
মোর্শেদুল ইসলামের স্ত্রী আফরোজা সাংবাদিকদের জানান, তাদের মেয়ে মুশফিকা আফসা এবার এসএসসি পাশ করেছে। কলেজে ভর্তির আগে তারা মেয়েকে এম এম কলেজের রসায়ন বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর আব্দুল হামিদের কাছে কোচিং-এ দেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে মেয়েকে কোচিংয়ে দিয়ে তারা স্বামী-স্ত্রী এম এম কলেজ ক্যাম্পাসে বসেছিলেন। এ সময় কলেজের শহীদ আসাদ হল থেকে একদল উচ্ছৃঙ্খল যুবক হকিস্টিক ও লাঠিসোটা নিয়ে তাদের ওপর চড়াও হয়। তারা পিটিয়ে আহত করে মোর্শেদুলকে। এ সময় স্বামীকে রক্ষা করতে গিয়ে স্ত্রী আফরোজাও আহত হন।
ওই যুবকরা চলে গেলে আফরোজা তার স্বামীকে নিয়ে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালের চিকিৎসক কল্লোল কুমার সাহা জানান, মোর্শেদুলের এক হাত ভেঙে গেছে।
মোর্শেদুল-আফরোজা দম্পতি অভিযোগ করেন, জামায়াত আখ্যা দিয়ে তাদের ওপর চড়াও হয় ওই দুবৃত্তরা। আহত মোর্শেদুল ইসলাম শহরের চাঁচড়া রায়পাড়া এলাকার মৃত মাওলানা নাজির আহমেদের ছেলে।
কোতয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিকদার আককাছ আলী বলেন, ঘটনা জানতে পেরে আহতদের সাথে কথা বলার জন্য হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।