মুক্তিযুদ্ধে দু’জনকে হত্যার অভিযোগে মামলার নির্দেশ

সাতীরা প্রতিনিধি :
১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে মামা ও চাচাতো ভাইকে হত্যার অভিযোগে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের রাজাকার শেখ খোরশেদ আলমসহ অজ্ঞাত ১০ / ১২ জনের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ মামলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।
সোমবার সাতক্ষীরা চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক নিতাই চন্দ্র সাহা বাদীর দেওয়া এই মামলাটি রেকর্ড করার জন্য কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে এই নির্দেশ দেন ।
বাদী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বর্তমানে ফরিদপুর প্রাইম ব্যাংক কর্মকর্তা কালিগঞ্জের মৌতলা গ্রামের কাজী আজহারুল ইসলাম মামলায় উল্লেখ করেন, ১৯৭১ সালের ১৩ অক্টোবর স্থানীয় রাজাকার শেখ খোরশেদ আলম ও অজ্ঞাত ১০ / ১২ জন রাজাকার তার চাচাতো মামা মো. আবদুস সাত্তার ও চাচাতো ভাই কাজী তরিকুল ইসলামকে বাড়ি থেকে জোরপূর্বক ধরে নিয়ে যায় । এদিন দুপুর ১২ টার দিকে তাদেরকে প্রথমে বেয়নেট দিয়ে খুচিয়ে নির্যাতনের পর মৌতলার জীরনগাছা সংলগ্ন রাস্তার পাশে নিয়ে তাদেরকে গুলি করে হত্যা করে । তারা তাদের লাশ ফেলে গেলে স্থানীয়রা তাদের কবরস্থ করেন । খোরশেদ আলম মৌতলা গ্রামের শেখ কেনাতুল্লাহ মিস্ত্রির ছেলে ।
শেখ খোরশেদ আলম যে একজন রাজাকার তা প্রমান করার জন্য বাদী মৌতলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান, কালিগঞ্জ থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফরিদউদ্দিন , সহকারি পুলিশ সুপার সৈয়দ নজরুল ইসলাম এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের আইন শাখার উপসচিবের দেওয়া কিছু দালিলিক কাগজপত্রও আদালতে পেশ করেন ।
মামলাটি রেকর্ড করার জন্য শুনানীতে অংশ নেন সাতক্ষীরা আদালতের এপিপি অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান ।