সমকালীন ও চিরকালীন কবি নজরুল

সুকুমার দাস:দ্রোহের কবি, মানবতার কবি, কবি প্রেমিক, বিরোহী বুলবুল কাজী নজরুল ইসলামের ১১৬ তম জন্ম জয়ন্তী সাড়ম্বরে পালিত হচ্ছে দেশব্যাপী। এ বছর জাতীয়ভাবে যশোরেও পালিত হচ্ছে তিনদিন জুড়ে টাউন হলের খোলা মাঠে।

কবি নজরুল ১৩০৬ সনের ১১ জ্যৈষ্ঠ (১৮৯৯ সালের ২৫ মে) বর্ধমানের চুরুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। অল্প বয়সে পিতৃহারা হবার কারণে তাকে মসজিদের ইমামতী, মক্তবের শিক্ষকতা, লেটোর দলের বাদক, রেলগার্ডের খানসামা, রুটির দোকানের শ্রমিক, ১ম বিশ্বযুদ্ধের সৈনিক, পত্রিকার সম্পাদক, এইচ, এম,ভি এর গীতিকার, সুরকার, আয়োজক (এরেঞ্জার), বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনের কর্মী — এক পর্যায়ে কারাবরণ, দীর্ঘদিন জেলখানাতে অনশন আর সাহিত্য ও সঙ্গীত রচনা। তার জীবন কর্ম বিস্ময়কর।

তার সৃষ্টির মধ্যে সঙ্গীতই প্রধান। এত অল্প সময়ে তিনি যে বৈচিত্র্যময় সঙ্গীত সৃষ্টি করেছেন তা অবিশ্বাস্য। তার গানগুলি একগোত্রের ও একশ্রেণীর নয়। তিনি একাধারে গজল, কাব্যসঙ্গীত, রাগপ্রধান, হাসির গান, কোরাস, শ্যামা সঙ্গীত, কীর্তন, ইসলামী গান (হামদ্, নাত, মর্শিয়া প্রভৃতি), ভক্তিগীতি, ভাটিয়ালী, ভাওয়াইয়া, মুর্শিদী, ঝুমুর, কাজরী, লাউনি, সাঁওতালী, বিভিন্ন দেশের আকর্ষনীয় সুর কানে এলেই সেটা ধরে রেখে বাংলা গানের সুর ভা-ারকে সমৃদ্ধ করেছেন। তিনি নিজে অসংখ্য রাগ – রাগিনী সৃষ্টি করে তা দিয়ে গান তৈরী করেছেন যেমন : দোলনচাঁপা রাগে গান “দোলন চাঁপা দোলে”। সৃষ্টি করেছেন নতুন নতুন তাল যেমন : “দীপচন্দী” ৭ মাত্রার তাল ২।৩।২। ভারতীয় উপমহাদেশের হারিয়ে যাওয়া রাগকে সংগ্রহ করে তার গানে সুন্দর ব্যবহার করেছেন যেমন : পটমঞ্জরী রাগে “আমি পথ মঞ্জরী ফুটেছি আঁধার রাতে”। তিনি বাংলা সঙ্গীতে গজল গানের ¯্রষ্টা। গজলের আদি নিবাস পারস্যে। পারস্যের প্রেমসঙ্গীতেই এর মূল উপজীব্য। দুটি অংশে গজল গাওয়া হয়, স্থায়ী ও অন্তরা। স্থায়ীটা সুরে, তালে গাওয়া হয় আর অন্তরা অংশটি তাল ছাড়া সুরের টান রেখে আবৃত্তি উচ্চারণে করা হয় এই অংশকে “শের বা শেয়র” বলে।

নজরুল সারাজীবন সোচ্চার ছিলেন কুসংস্কার, ধর্মান্ধতা ও কূপম-ুকতার বিরুদ্ধে। নির্ভিক চিত্তে গেয়েছেন মানবতা ও সাম্যেও জয়গান। মানুষকে জাগিয়েছেন অন্যায়ের বিরুদ্ধে, অবিচারের বিরুদ্ধে, শোষণ – বঞ্চনার শৃঙ্খল ভাঙ্গার আন্দোলনে। দারিদ্রের কশাঘাত সহ্য করেছেন, ভোগ করেছেন কারা নির্যাতন, নিপীড়ন কিন্তু ব্যক্তিগত লোভ – লাভ খ্যাতির মোহে কখনো নিজেকে বিকিয়ে দেননি।

এখানেই তিনি সমকালের দাবী মিটিয়েও চিরকালীন ॥

সাধারণ সম্পাদক
সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট
যশোর ॥