বেনাপোলে সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু

বেনাপোল প্রতিনিধি :
আমদানি-রফতানি বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিজিবি ও কাস্টমস কর্তৃক হয়রানির অভিযোগ এনে বেনাপোল স্থলবন্দরে লাগাতারভাবে কর্মবিরতি শুরু করেছে সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ এসোসিয়েশন।
বুধবার দুপুর থেকে বেনাপোল কাস্টমস হাউজের সামনে বিক্ষোভ সভা করে এ কর্মবিরতির ঘোষণা দেয় নেতারা।
বক্তব্যে নেতারা বলেন, আমদানি-রফতানি বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বৈধ ব্যবসায়ীদেরকে কাস্টমস ও বিজিবি কর্তৃক অযথা হয়রানি কোনো ভাবে মেনে নেয়া হবে না। সরকারকে যথা নিয়মে রাজস্ব পরিশোধ করেও বিজিবি আবার কোনো সময় কাস্টমস কর্তৃক অযথা হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে। পণ্য ছাড় করানোর ক্ষেত্রে হয় কাস্টমস অথবা বিজিবি’র মধ্যে যে কোনো একজনকে দায়িত্ব নিতে হবে। কাস্টমস দায়িত্ব নিয়ে মাল খালাসের অনুমতি দিলে বিজিবি সদস্যরা হয়রানি করতে পারবে না। আর বিজিবি দায়িত্ব নিলে দ্বিতীয়বার কাস্টমস মাল দেখতে পারবে না। তাদের অযথা হয়রানির কারণে এ পথ দিয়ে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে বহিরাগত ব্যবসায়ীরা।
স্টাফ নেতারা সিঅ্যান্ডএফ মালিকদের প্রতিও অভিযোগের তীর ছুড়ে বলেন, এসব হয়রানির বিরুদ্ধে মালিক পক্ষ (সিঅ্যান্ডএফ) নেতারা শক্তভাবে প্রতিবাদ করেন না। জানিনা তাদের দুর্বলতা কোথায়। কর্মচারীদের প্রতিবাদ করতে গিয়ে বার বার লাঞ্ছিতসহ মামলার শিকার হতে হচ্ছে। সেখানেও নীরব মালিক পক্ষ বলে অভিযোগ তোলেন কর্মচারী নেতারা।
বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্ট্যাফ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন কর্মবিরতির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি চূড়ান্তভাবে নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এ কর্মবিরতি চলতে থাকবে বলে জানান তিনি।
এদিকে, কর্মবিরতির কারণে বেনাপোল বন্দর থেকে আমদানি ও রফতানি পণ্য ছাড় করানোর কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। ফলে বড় ধরনের অচলাবস্থার মধ্যে পড়তে যাচ্ছে বাণিজ্যিক কার্যক্রম। বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তির মাধ্যমে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার দাবি ব্যবসায়ীদের।