স্বামী শ্বশুরের বিরুদ্ধে যশোর এমআর ক্লিনিকের কর্মী জেসমিনের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোরের ২৫০ শয্যা হাসপাতালের এমআর ক্লিনিকের কর্মী জেসমিন খানম তার স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি এবং দেবরের বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন। যৌতুকের দাবিতে তাকে মারপিট এবং হুমকি দেয়া হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেছেন।
অভিযুক্তরা হলো, তার স্বামী নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার ইতনা গ্রামের টুটুল শিকদার, শ্বশুর জয়নাল শিকদার, দেবর পিকুল শিকদার, ইসরাফিল শিকদার এবং শাশুড়ি শরিফা বেগম কুটি।
অভিযোগে বলা হয়েছে, ২০০৬ সালের ২১ জুলাই টুটুলের সাথে তার বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের ইয়ামিন (৬) নামে একটি ছেলে আছে। বিয়ের পর তিনি টুটুলকে লেখাপাড়া খরচ যোগান। এমএ পাশ করে সৌর বিদ্যুতের একটি কোম্পানিতে চাকরি নেয় টুটুল। তার ভাই পিকুলে চাকরির জন্য তার কাছে দু লাখ টাকা দাবি করে। কিন্তু টাকা দিতে অস্বীকার করায় তার ওপর নির্যাতন চালায়। আসামিরা গত ২মার্চ তার বাসভনের এসে ৭০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এরপর ৫ জুন এসে ৭ ভরি সোনার গহনা নিয়ে যায়। এরপরও তার কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে ৭ লাখ টাকা নিয়েছে। ফের নতুন করে দু লাখ টাকা চায়। টাকা দিতে অস্বীকার করায় টুটুল তার ওপর নির্যাতন করে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন।