চুড়ামনকাটিতে মাটির ট্রাক কেড়ে নিলো গৃহবধূর প্রাণ, ছেলে আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটিতে বেপরোয়া মাটির ট্রাক কেড়ে নিলো এক গৃহবধূর প্রাণ। এ সময় তার সাথে থাকা শিশু পুত্র শুরুতর আহত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে স্থানীয় ব্র্যাক অফিসের সামনে চালক ট্রাকের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম নুরজাহান বেগম (৪৫)। তিনি চুড়ামনকাটি গ্রামের উত্তর পাড়ার জহুরুল ইসলামের স্ত্রী। আহত ছেলে সোহেল রানা (৭) যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। প্রতিবেশীদের সূত্রে জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার সকালে গৃহবধূ নুরজাহান বেগম তার শিশু পুত্র সোহের রানাকে নিয়ে চুড়ামনকাটি বাজারে আসছিলেন। পথিমধ্যে তারা চুড়ামনকাটি ব্র্যাক অফিসের পাশে পৌঁছালে বাগডাঙ্গা এলাকায় অবস্থিত শহিদুল ইসলামের ইট ভাটার মাটি বহনকারী ট্রাকের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তাদেরকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে মারা যান গৃহবধূ নুর জাহান বেগম। তার শিশু পুত্র সোহের রানাকে মারাত্মক জখম অবস্থায় উদ্ধারের পর যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে মহিলা সার্জারি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সোহেল রানা অচেতন ছিলো। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। এদিকে, চুড়ামনকাটি গ্রামের শাহাবুদ্দিন ও আমাদুল ইসলামসহ আরো অনেকেই জানিয়েছেন, চুড়ামনকাটির বাগডাঙ্গা এলাকায় অবস্থিত শহিদুল ইসলামের ইটভাটা ও আমিন উদ্দিনের ইটভাটার ট্রাক গুলোর খুবই বেপরোয়াভাবে চলাচল করে থাকে। এর আগে এ ইটভাটার ট্রাকে একাধিক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। বিগত দিনে ট্রাকের মালিক ও চালকদের একাধিকবার সতর্ক করা হলেও তারা কর্ণপাত করেননি। যে কারণে সর্বশেষ ওই মাটি বহনকারী ট্রাকের ধাক্কায় নুরজাহান বেগম নামে এক গৃহবধূর নিভে গেলো তাজা প্রাণ। আর হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে শিশু মাসুদ রানা। মা ছেলে হতাহতের ঘটনায় তাদের আত্মীয় স্বজনসহ প্রতিবেশিদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।