প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দের হস্তক্ষেপে বান্দা গ্রামের উত্তেজনার অবসান

সুব্রত কুমার ফৌজদার, ডুমুরিয়া>
ডুমুরিয়ায় বান্দা গ্রামে হেলিকপ্টার দেখাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধ অবশেষে নিরসন হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি’র প্রচেষ্টায় বান্দা কলেজিয়েট স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত সমন্বিত সভায় এ বিরোধ মিটিয়ে নেওয়া হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়, গত ২৩ নভেম্বর সকালে ডুমুরিয়া উপজেলার বান্দা গ্রামের বর-বধূকে নামিয়ে দিতে বান্দা কলেজিয়েট স্কুল মাঠে একটি হেলিকাপ্টার অবতরণ করে। স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা ওই হেলিকাপ্টারটি দেখা সুযোগ চেয়ে কলেজ অধ্যক্ষকে অনুরোধ করে। কিন্তু বিদ্যালয়ে এইচএসসি’র টেস্ট পরীক্ষা চলছিল একারণে অধ্যক্ষ এ সুযোগ দেননি। হেলিকপ্টার দেখার সুযোগ না পাওয়ায় গত ২৪ নভেম্বর অভিভাবকসহ ছাত্র-ছাত্রীরা কলেজ অধ্যক্ষের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে বিক্ষোভ করতে থাকে। বিষয় আঞ্চলিক কোন্দলে রূপ নেয়। অধ্যক্ষ ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের মধ্যে মতবিরোধের সৃষ্টি হয়। বিষয়টি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি জেনে বৃহস্পতিবার বিকালে বান্দা কলেজিয়েট স্কুল মাঠে গ্রামবাসীকে নিয়ে এক সমন্বয় সভার আয়োজন করেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রাক্তন ইউপি সদস্য ধীরাজ চন্দ্র বৈরাগী। সভায় প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বান্দা গ্রামের একটা সুনাম ইতিমধ্যে সর্বস্তরে ছড়িয়ে পড়েছে। এধারা অব্যহত রাখতে হলে নিজেদের মধ্যে ভেদাভেদ রাখলে চলবে না। এখানকার মানুষদের খেয়াল রাখতে হবে প্রধান ঐতিহ্য কিন্তু বান্দা কলেজিয়েট স্কুল। আর তার সম্মান কোনভাবেই খুন্ন হতে দেয়া যাবেনা।’
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন স্থানীয় ভান্ডারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান হিমাংশু বিশ্বাস, কলেজ অধ্যক্ষ সৌমেন মন্ডল, অধ্যাঃ গৌতম রায়, প্রবীন শিক্ষক কালীদাশ বিশ্বাস, আ’লীগ নেতা আকরাম হোসেন, বিধান চন্দ্র ঢালী, কাশিনাথ বিশ্বাস, শিক্ষক সৌরীন্দ্রনাথ হালদার প্রমুখ।