যশোরে ট্রাফিক সার্জেন্টকে গুলি করার হুমকিতে মামলা, আটক ২

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরে ট্রাফিক সার্জেন্টকে গুলি করার হুমকি দেয়ায় ২১ শে ইলেক্ট্রনিক্স লিমিটেডের দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে শহরের দড়াটানা থেকে তাদের আটক করা হয়।
আটক দুইজন হলেন, সদর উপজেলার বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামের তৌহিদ আলীর ছেলে আজগর আলী (৩৫) এবং পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ থানাস্থ নারায়ণী বনশ্রমী গ্রামের মৃত আবির উদ্দিনের ছেলে আব্দুল লতিফ। তারা ওই কোম্পানির মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ।
যশোর ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, শুক্রবার বিকেলে তিনি দড়াটানা ট্রাফিক বক্সের সামনে ডিউটি দিচ্ছিলেন। এ সময় ওই দুই যুবক একটি মোটরসাইকেলে (যশোর-১৩-৩৬৫৯) এসে কনস্টেবেল জেলটিয়াকে ধাক্কা দেয়। এরপর তাদের কাছে মোটরসাইকেলের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখতে চাইলে তারা রেগে যায়। এ সময় আসামি লতিফ তাকে গুলি করার হুমকি দেয়। পরে তাকে ধাক্কা দিয়ে পালানোর চেষ্টা করলে তাদের আটক করা হয়। এই ঘটনায় সরকারি কাজে বাঁধা এবং প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগে মামলা হয়েছে।

যশোরে মাদকদ্রব্যসহ
আটক ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক
যশোরে পুলিশ আলাদা অভিযানে হেরোইন ও গাঁজাসহ ৫জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলো শহরের ষষ্টিতলা এলাকার বাবুল হোসেনের স্ত্রী লাবনী বেগম, মৃত রহমান আলী গাজীর ছেলে মুন্না গাজী, হুদা রাজাপুর গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে আশিক ও বিরামপুর পশ্চিমপাড়ার মৃত সাহাব উদ্দিনের ছেলে কামাল হোসেন ।
কোতয়ালি থানার এসআই মোল্লা মিরাজ মোসাদ্দেক জানিয়েছেন, শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে শহরের টাউনহল ময়দানের পশ্চিমপাশের গেটের সামনে থেকে লাবনীকে আটক করা হয়। পরে নারী পুলিশ সদস্য দিয়ে তার দেহতল্লাশি করে কোমরে গোঁজা অবস্থায় ৫০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করা হয়।
ইছালী পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই হুমায়ুন কবির জানিয়েছেন, যশোর-মাগুরা সড়কের রাজাপুর এমকে ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে শুক্রবার রাত সোয়া ১০টার দিকে আশিককে আটক করা হয়। এরপর তার পরনের লুঙ্গির গাটে গোঁজা অবস্থায় ৫০ গ্রামে হেরোইন উদ্ধার করা হয়েছে।
ডিবি পুলিশের এএসআই আলমগীর হোসেন জানিয়েছেন, সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে রেলগেট পশ্চিমপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে ২৬০ গ্রাম গাঁজাসহ মুন্না গাজীকে আটক করা হয়।
কোতায়ালি থানার এসআই আকরাম হোসেন জমাদ্দার জানিয়েছেন, শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিরামপুর পশ্চিমপাড়ার সাইফুল ইসলামের বাড়ির পাশ থেকে কামাল হোসেনকে আটক করা হয়। পরে তার দেহ তল্লাশি করে ২শ’ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়।