সাজিয়ালী পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর সদরের সাজিয়ালী পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আসাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে গাঁজাসহ এনামুল হক নামে এক যুবককে আটক করে ৩৪ ধারায় আদালতে চালান দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। আবার এক পুরিয়া গাঁজাসহ আটক হলেও সুমন নামে এক যুবককে ২শ’ গ্রাম গাঁজাসহ আটকের মামলা দিয়েছেন।
সাজিয়ালী পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই রকিব উদ্দিন জানিয়েছেন, শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে চুড়ামনকাটির আব্দুল গফফারের ধানের চাতালের উত্তর পাশ থেকে এক পুরিয়া গাঁজাসহ বড় হৈবতপুর গ্রামের আব্দুল ওয়াদুদের ছেলে সুমন এবং দৌলতদিহি গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের ছেলে এনামুলকে আটক করা হয়। সুমন গাঁজা বিক্রেতার আর এনামুল ক্রেতা।
ওই এলাকার একটি সূত্রটি জানিয়েছে, শুক্রবার রাতে গাঁজা বিক্রেতার সুমন এবং ক্রেতা এনামুল হককে আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর তাদের পরিবারের সাথে চলে দেনদরবার। রাতে দুই পরিবারের কাছে এক লাখ টাকা দাবি করেন তিনি। পরে রাতভর দেনদরবার করে এনামুলের পরিবারের কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা নিয়ে তাকে ৩৪ ধারায় আটক দেখিয়ে শনিবার আদালকে চালান দেয়ার ব্যবস্থা করেন। আর সুমনের কাছ থেকে ২শ’ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার দেখিয়ে টুআইসি এএসআই রকিব উদ্দিনকে দিয়ে মামলা দেন।
অভিযোগ প্রসঙ্গে এসআই আসাদুজ্জামান শনিবার রাতে মোবাইল ফোনে জানিয়েছেন, চাতালের পাশ থেকে সুমনকে দুইশ’ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করা হয়। এনামুল হককে ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে ৩৪ ধারায় চালান দেয়ার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি উল্টো প্রশ্ন করেন, ‘কে বলেছে এই কথা ?’ পরে তিনি জানান, অভিযোগের সত্যতা নেই।