ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত ৯৭

নিউজ ডেস্ক >ইন্দোনেশিয়ার আচেহ প্রদেশের উপকূলে সাগরতলে ৬.৫ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা ৯৭ জনে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছে প্রাদেশিক সরকার।

বুধবার স্থানীয় সময় ভোর ৫টা ৩ মিনিটে সুমাত্রা দ্বীপের উত্তর-পূর্ব উপকূলে সাগরতলের এ ভূমিকম্পে ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়ে আরও অনেক মানুষ আহত হয়েছে।

আচেহর ঘরবাড়ির ধ্বংস্তূপের নিচে আরও বহু মানুষ আটকা পড়ে আছে। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ভারী যন্ত্রপাতি নিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে। প্রদেশটিতে জরুরি অবস্থাও জারি করা হয়েছে।

ভূমিকম্পের কারণে কোনও সুনামির আশঙ্কা নেই বলে ইন্দোনেশিয়ার আবহাওয়া সংস্থা জানিয়েছে।

এক যুগ আগে ২০০৪ সালে ৯.২ মাত্রার প্রলয়ঙ্করী এক ভূমিকম্প ও সুনামিতে ভারত মহাসাগরের ঊপকূলে থাকা ইন্দোনেশিয়া ও অন্যান্য দেশের অনেক জনপদ ভেসে যায়। শুধু ইন্দোনেশিয়াতেই এক লাখ ৬০ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) জানিয়েছে, ভূমিকম্পটির উৎপত্তি উপকূলে সাগরতলের ১৭ দশমিক দুই কিলোমিটার গভীরে।

ভূমিকম্পে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পিদি জায়া জেলার ডেপুটি জেলা প্রধান সাইদ মুলিয়াদি জানিয়েছেন, নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে তারা আশঙ্কা করছেন।

নিহতদের মধ্যে বেশ কয়েকটি শিশু রয়েছে এবং স্থানীয় হাসপাতালগুলো আহতদের ভিড়ে উপচে পড়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

দেশটির দুর্যোগ ব্যাবস্থাপনা দপ্তরের মুখপাত্র সুতোপো নুগ্রহ এক বিবৃতিতে বলেন, “শক্তিশালী ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে; ভবন ধসের আগে অনেকেই আতঙ্কিত হয়ে দৌঁড়ে বেরিয়ে আসেন।”

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পাওয়া ছবিতে ভূমিকম্পের পর ধসে পড়া ভবন ও বিদ্যুতের খুঁটি এবং রাস্তায় আতঙ্কিত মানুষের ভিড় দেখা গেছে।

ভূমিকম্পের পর এক ঘণ্টায় অন্তত পাঁচটি পরাঘাত অনুভূত হওয়ার কথা জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যাবস্থাপনা দপ্তর।