চৌগাছায় গরু চুরির রহস্য উদঘাটনের পথে

চৌগাছা (যশোর ) প্রতিনিধি>
যশোরের চৌগাছায় জুলু মোল্লা (৪০) নামের এক গরুচোর আটক করেছে পুলিশ। আটক জুলু মোল্লা উপজেলার উজিরপুর গ্রামের মৃত সমশের মোল্লার ছেলে।
কিছুদিন যাবৎ এ উপজেলায় গরু চুরিসহ অন্যান্য চুরি-ডাকাতির ঘটনা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ৪ ও ৫ ডিসেম্বার রাতে এ উপজেলার সলুয়া ও রানিয়ালী গ্রাম থেকে ১৮টি গরু চুরি হয়। এসব চুরির ঘটনায় উপজেলা জুড়ে গরু ব্যবসায়ী ও চাষিরা চুরি আতংকে রাত কাটাচ্ছেন। গরুচোর সিন্ডিকেট ধরতে শুক্রবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চৌগাছার দশপাখিয়া ফাঁড়ি পুলিশ পাশাপোল বাজার থেকে হাফিজুর রহমান নামের এক আলমসাধু চালককে আটক করে। সে সিংহঝুলি ইউনিয়নের হুদা ফতেপুর গ্রামের শওকত আলীর ছেলে। একইদিন জিজ্ঞাসার জন্য ঝিকরগাছা উপজেলার কায়েমকোলা বাজার থেকে শিমুল বিশ্বাস (৩৫) নামের এক গরুর ব্যাপারিকে আটক করা হয়। হাফিজুর ও শিমুলের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বারবাজার হাট থেকে একটি চোরাই গরু উদ্ধার করা হয়। এদিন বিকালে রঘুনাথপুর জামতলা মোড় থেকে জুলু মোল্লা নামের এক গরুচোরকে আটক করে পুলিশ। সে উজিরপুর গ্রামের মৃতঃ মোসারফ মোল্লার ছেলে। এদিকে গরু চোর আটকের সংবাদ ছড়িয়ে পরলে উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে চুরি যাওয়া গরুর মালিকরা দশপাখিয়া পুলিশ ফাঁড়িতে ছুটে যান। এ ব্যপারে দশপাকিয়া ফাঁড়ির এএসআই উজ্জল হোসেন জানান, আলমসাধু চালক ও গরু ব্যাপারির তথ্যমতে চোরাই গরু বিক্রিকারী জুলুকে আমরা গ্রেফতার করেছি। সে গরু চুরির কথা স্বীকার করেছে এবং আরো কয়েকজনের নাম বলেছে, তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। আটক আলমসাধু চালক ও গরুর ব্যাপারিকে ছেড়ে দেওয়া হবে কি না ? জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা এর সাথে জড়িত কিনা যাচাই-বাচাই করা হচ্ছে। চুরির সাথে সংশ্লিষ্টতা না থাকলে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হবে।