যশোরে নকল ভিকসল ও সার কারখানায় জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরে নিউ নুর হোটেল, সাউদান এগ্রো, নকল ভিকসল কারখানাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে ৩ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে। এসময় নকল ভিক্সসল কারখানা সিলগালা করে দিয়েছে আদালত। হোটেলে বাসি খাবার সংরক্ষণ, কারখানা পরিচালনার বৈধ কাগজপত্র না থাকায় মামলা দিয়ে এ জরিমানা আদায় করা হয়।
শনিবার পরিচালিত এ আদালতের নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.আনিসুর রহমান। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ ফাউন্ডেশন ঝিকরগাছা বাজারে বিভিন্ন হোটেল ও মিষ্টির দোকানে সচেতনতামূলক প্রচার অভিযান চালিয়েছে।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, সকালে ভ্রাম্যমাণ আদালত শহরের এমএম আলী রোডের নিউ নুর হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্টে অভিযান চালায়। এ সময় রান্না ঘরে নোংরা পরিবেশ ও ফ্রিজে বাসি খাবার সংরক্ষণ করার অপরাধে ম্যানেজার হেদায়েত উল্লাহর নামে মামলা দিয়ে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
শহরের কাঠেরপুল এলাকার গ্রীন-টি স্টোরে অভিযান চালায় আদালত। চায়ের প্যাকেটে উৎপাদন ও মেয়াদ উর্ত্তীণের তারিখ না থাকায় মালিক আনিসুল আকবারের নামে মামলা দিয়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
যশোর উপশহর এফ-ব্লকের সাউদান এগ্রো কেমিকেল ইন্ডাস্ট্রিজে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় কারখানায় সার উৎপাদনের কোন বৈধ কাগজপত্র না থাকায় ম্যানেজার জয়নালের নামে মামলা দিয়ে ১ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
একই আদালত শহরের বকচরের খান কেমিকেলে অভিযান চালায়। এ সময় নকল ভিকসল টয়লেট ক্লিনার ও পুটিং তৈরি ও বোতলজাত করার অপরাধে মালিক মাসুদ আক্তার মিলনের নামে মামলা দিয়ে দেড় লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এ সময় কারখানা সিলগালা করে দিয়েছে আদালত।
মেসার্স মা জর্দা কেমিকেল ওয়ার্কসে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় কারখানা পরিচালনার বৈধ কাগজপত্র না থাকায় ম্যানেজার কাজলের নামে মামলা দিয়ে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
যশোরের ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন ফাউন্ডেশন ঝিকরগাছা বাজারের বিভিন্ন হোটেল ও মিষ্টির দোকানে প্রচার অভিযান চালিয়েছে। এ সময় হোটেল ও মিষ্টির দোকানে স্বাস্থ্যম্মত পরিবেশে খাবার তৈরি ও বিক্রির পরামর্শ দেয়া হয়। একই সাথে ভোক্তা অধিকার নিশ্চিতের লক্ষ্যে হোটেল ও মিষ্টির দোকানে পণ্যের তালিকা টানিয়ে রাখার পরামর্শ দেয়া হয় মালিকদের। এ প্রচার অভিযানের নেতৃত্ব দেন জেলা প্রতিনিধি শফিকুল ইসলাম।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন কোতয়ালি থানার এসআই তারিকুল ইসলাম, এপিবিএন খুলনার এএসআই আমিনুল ইসলাম, পেশকার বদিউজ্জামান ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।