বাড়িতে বোমা রেখে ফাঁসানো চেষ্টার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে আব্দুর রাজ্জাক নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে ৫টি বোমা রেখে পুলিশ দিয়ে হয়রানির ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ উঠেছে ।
ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার রাতে শহরের শংকরপুর দক্ষিণপাড়ায়। আব্দুর রাজ্জাক ওই এলাকার মৃত সাহেব আলীর ছেলে।
অভিযোগে জানা গেছে, আব্দুর রাজ্জাকের পরিবারের লোকজন চাঁচড়া মৌজার ১১ শতক জমি দীর্ঘদিন ধরে ভোগদখল করে আসছেন। গত ৪ ডিসম্বের ওই এলাকার তাদের প্রতিপক্ষ মৃত পাঁচু সরদারের ছেলে খালেক, হালিম, টিপুসহ অন্যান্যরা ওই জমি দখলে নিয়ে নিজেদের দাবি করে। ঘটনার পরদিন আব্দুল রাজ্জাকের পরিবারের পক্ষ থেকে আদালতে মামলা করা হয়। মামলা করার পর প্রতিপক্ষরা নানা ভাবে রাজ্জাক পরিবারের লোকজনকে ফাঁসানোর মতলব আটে।
শনিবার রাতে কোতয়ালি থানার এসআই আমির হোসেনসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আব্দুল রাজ্জাকের বাড়িতে যান। সেখানে গিয়ে তিনি রাজ্জাকের বারান্দায় খাটের নিচে ৫টি বোমা উদ্ধার করেন। বিষয়টি তাৎক্ষণিক তারা পুলিশকে জানায় এবং তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের কারণ কি তা পুলিশকে বোঝাতে সক্ষম হন। সে কারণে পুলিশ বোমা সাদৃশ্য ৫টি বস্তু জব্দ করে।
রাজ্জাক অভিযোগ করেছে, শংকরপুর এলাকার মতিয়ার রহমানের ছেলে সেলিম ওই ষড়যন্ত্র করেছে। তার বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় মামলাও আছে।
এই বিষয়ে কোতয়ালি থানার এসআই আমির হোসেন জানিয়েছেন, শনিবার রাতে রাজ্জাকের বাড়িতে গিয়ে ৫টি বোমা সাদৃশ্য বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ষড়যন্ত্রের আভাস পাওয়া গেছে। যেভাবে বোমা রাখা হয়েছে তা দেখে মনে হয়নি আব্দুর রাজ্জাকের কাজ। তাছাড়া যে ব্যক্তি শনিবার রাতে মোবাইল করে বোমা রাখার কথা বলেছিল সে ব্যক্তি পরবর্তীতে ফোন বন্ধ করে রেখেছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।