বাঁকড়া ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাকের নাগরিক শোকসভা

এম আলমগীর, বাঁকড়া (ঝিকরগাছা)>
যশোর-৫ আসনের সংসদ সদস্য বাবু স্বপন ভট্টাচার্য বলেছেন, অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক ছিলেন সময়ের সাহসী সন্তান। তিনি ধর্ম, বর্ণ, সাম্প্রদায়িকতার উর্ধ্বে এসে মানুষের সেবা করতেন। তার চিন্তাভাবনা ছিল অনেক দুরদর্শী। আদর্শিক ও আতœবিশ্বাসী মানুষ হিসাবে তার অভাব আমাদের মাঝে থেকে যাবে।
যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির বলেছেন, আব্দুর রাজ্জাক ছিলেন সকল ধর্ম, বর্ণ ও রাজনীতির ঊর্ধ্বে। ধর্মীয় ও রাজনৈতিক বিষয়ে তার জ্ঞানের পরিধি ছিল অসীম। সামাজিক আচার অনুষ্ঠান, স্থানীয় উন্নয়ন, এলাকার মসজিদ, মাদ্রাসা ও স্কুল-কলেজের এহেন কোন প্রতিষ্ঠান নেই, যেখানে তার পদচারণা পাওয়া যায় না।এই মানুষটির হঠাৎ চলে যাওয়ায় আমরা শুধু একজন শিক্ষাগুরু হারাইনি, হারিয়েছি এলাকার একজন অভিভাবককে। তার অভাব বাঁকড়াবাসী কোনদিন পূরণ করতে পারবে না। তিনি আজ আমাদের মাঝে নেই কিন্তু তার সকল কাজকর্মের মাঝে বেঁচে থাকবেন আজীবন।
যশোর-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাড. খান টিপু সুলতান বলেছেন, মরহুম আব্দুর রাজ্জাক ছিলেন একটি প্রতিষ্ঠান। তিনি সকল ক্ষেত্রে আদর্শ ঠিক রেখে কাজকর্ম করেছেন। কখনও নিজের নীতি-নৈতিকতার অবমূল্যায়ন করেননি। নিজের কথা চিন্তা না করে তিনি আজীবন এলাকার উন্নয়নের কথা ভেবেছেন। এই এলাকার মানুষ তার ঋণ কোনদিন শোধ করতে পারবে না।
ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়া ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ এম আব্দুর রাজ্জাকের এক বিশাল নাগরিক শোকসভায় অতিথিরা এসব কথা বলেন।
গতকাল বিকালে বাঁকড়া জে.কে মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে নাগরিক শোকসভা কমিটির আহবায়ক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইবাদ আলীর সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাঁকড়া জে.কে মাধ্যমিক বিদ্যালয় সাবেক প্রধান শিক্ষক গোলাম মহিউদ্দীন, গোলাম রসুল, মরহুম আব্দুর রাজ্জাকের ছোট ভাই যশোর মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক অর্থোপেডিক সার্জন ডা. এএইচএম আব্দুর রউফ, সহকর্মী আব্দুর রশিদ, মধু ভট্টাচার্য, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের নেতা মুক্তিযোদ্ধা ডা. ইয়াকুব আলী মোল্যা, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. দিপক কুমার মন্ডল, ঝিকরগাছার প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব আমজাত হোসেন কলিম, রোটারিয়ান ক্লাব অব যশোরের সভাপতি তরিকুল ইসলাম, গ্রামীণ ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার ও বাঁকড়া জে.কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোসলেম আলী, অধ্যক্ষ হাফিজুর রহমান, ব্যাংকার সুবল কুমার, বাঁকড়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সামছুর রহমান, সাবেক অধ্যক্ষ আব্দুস সাত্তার, উপাধ্যক্ষ গাজী আব্দুস ছাত্তার, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আছিরউদ্দীন, সাবেক প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক, আব্দুস সাত্তার, হাজিরবাগ ইউপি চেয়ারম্যান ডা. আতাউর রহমান মিন্টু, নির্বাসখোলা ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান মাওলানা মতিউর রহমান, প্রধান শিক্ষক ওলিয়ার রহমান, হেলালউদ্দীন খান, আজহারুল ইসলাম, কবি ও সাহিত্যিক সফিয়ার রহমান, প্রাক্তন ছাত্র আকবর হোসেন জাপানী, রবিউল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা আলী আকবর প্রমূখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ডা. মোস্তফা আসাদুজ্জান, সাংবাদিক আবুল কাশেম ও মাস্টার আব্দুল মোনেম।
উল্লেখ্য, মরহুম এম আব্দুর রাজ্জাক গত ২৭ সেপ্টেম্বর যশোর যাওয়ার পথে লাউজানী তেল পাম্পের পাশে এক মর্মান্তিক সড়ক দুঘর্টনায় নিহত হন। এসময় তার সফরসঙ্গী মটরসাইকেল চালক কলেজ ছাত্র রিপনও মুত্যুবরণ করে। নাগরিক শোকসভায় তার সহকর্মী, প্রাক্তন ছাত্র, শুভাকাঙ্খীদের অশ্রুসিক্ত স্মৃতিচারণ সকল মানুষকে কাঁদিয়েছে।