ডুমুরিয়ায় বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ২১ হাজার হেক্টর

সুব্রত কুমার ফৌজদার, ডুমুরিয়া >
চলতি বোরো মৌসুমে খুলনা জেলার সবচেয়ে বেশি আবাদ হচ্ছে এবছর ডুমুরিয়াতে। ২১ হাজার ২শ’ হেক্টর জমিতে ধানের আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। ধানের দাম বেশি থাকায় কৃষকেরা ব্যাপক উদ্যোমে মাঠে নেমে পড়েছেন। শীত কম থাকায় কৃষকেরা এবার আগে ভাগেই রোপনের কাজ শুরু করেছেন।
সরেজমিনে ঘুরে, কৃষক ও উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে ২১ হাজার ২শ’ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা খুলনা জেলার সবচেয়ে বেশি। তবে উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের মধ্যে গুটুদিয়া ইউনিয়নে অর্থাৎ প্রায় ৫ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করা হচ্ছে। এবছর ব্রিধান-২৮, ব্রিধান-৫৫, ব্রিধান ৬৭, ব্রিধান ৬১, ব্রিধান ৬৪, ব্রিধান ৭৪, বিনা-৮, বিনা-১০, হাইব্রিড হীরা, সিনজেন্টা প্রমুখ জাতের ধান আবাদ করা হচ্ছে। এরমধ্যে ব্রী ধান ২৮ ও বিভিন্ন হাইব্রিড জাতের ধান বেশি চাষাবাদ হচ্ছে। এছাড়াও লবনাক্ত এলাকায় বিএডিসি’র এসএলএইডএইচ জাতের ধান চাষাবাদ হচ্ছে। এজাতের ধান খুলনার দাকোপ উপজেলাতে বেশি চাষ হয়ে থাকে। বছরের শেষ সময় ধানের বাজার বৃদ্ধি হওয়ায় কৃষকেরা ব্যাপক উদ্যোম নিয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন।
মুজারঘুটা, কালিতলা, সাড়াভিটা, শলুয়া, ডাকাতিয়া বিল, উলা, মৈখালী, পেড়িখালী, কুলবাড়িয়া, চেচুড়ি, দোহকুলা, কোমরাইল, মিকশিমিল, টোলনা, মাদবকাটি, বিলপাটেলা, শাহপুর, হাসানপুর, মির্জাপুর, খড়িয়া, গুটুদিয়া, জোয়ারে বিল, জিলেরডাঙ্গা বিল, ঘোনাবান্দার বিল, বখারখোর বিল, বিলপাবলা বিল, কুলটি বিল, পঞ্চু বিল, উলা, মৈখালী, পেড়িখালী, চাকুন্দিয়া, খর্ণিয়া, ভান্ডারপাড়া, খর্ণিয়া, উকড়া, সিংগাসহ উপজেলার বিভিন্ন ছোট বড় বিলগুলোতে ইরি-বোরো আবাদ চলতে জোরেসোরে।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, বোরো ধান খুলনা জেলার মধ্যে ডুমুরিয়াতে সবচেয়ে বেশি চাষ হচ্ছে। এখানে লক্ষ্যমাত্রা ২১ হাজার ২শ’ হেক্টর জমি নির্ধারণ করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে আদর্শ বীজতলা তৈরির কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। ইতোমধ্যে কোথাও কোথাও রোপনের কাজও শুরু হয়েছে। উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের মাধ্যমে কৃষকদেরকে মাঠ পর্যায়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। তাছাড়া বাজারে সারের কোন ঘাটতি নেই।