বাঘারপাড়ায় নারিকেল চাষে কৃষি বিভাগের নতুন উদ্যোগ

ইকবাল কবির, বাঘারপাড়া >
নারিকেল চাষে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর নতুন উদ্যোগ নিয়েছে। চলতি বছরে ভিয়েতনাম থেকে সংগ্রহ করেছে খাটো জাতের নারিকেলের চারা। খাটো এ জাতের নারিকেলের চাষ বৃদ্ধিতে কৃষক পর্যায়ে চারা বিতরণ করছে। এর আওতায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। ‘বছর ব্যাপী ফল উৎপাদনের মাধ্যমে পুষ্টি উন্নয়ন’ নামের এ প্রকল্পের আওতায় বুধবার যশোরের বাঘারপাড়ায় ৬০ জন কৃষককে ১২০ টি নারিকেলের চারা দেয়া হয়।
এ উপলক্ষে বাঘারপাড়া উপজেলা কৃষি অফিসের প্রশিক্ষণ কক্ষে এক দিনের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। যশোর হার্টিকালচার সেন্টারের ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষণে উপস্থিত ছিলেন- কৃষি অধিদপ্তরের যশোর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক চন্ডিদাস কুন্ডু, যশোর হার্টিকালচার সেন্টারের উপ-পরিচালক বিনয় কুমার সাহা, বাঘারপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম, উদ্যানতত্ত্ববিদ আবিদা মানসুরা।
উপস্থিত কর্মকর্তা কৃষকেদের বলেন, ভিয়েতনাম থেকে সংগৃহীত এ নারিকেলের জাতের নাম সিয়াম গ্রীন। নির্দেশনা অনুযায়ী পরিচর্যা করলে চারা রোপনের তিন বছরের মধ্যে নারিকেল পাওয়া যাবে। ভিয়েতনামে খাটো এ জাতের একটি বয়স্ক গাছ দশ থেকে পনের ফুট লম্বা হয়। গাছ খাটো হওয়ায় এর পরিচর্যা অনেক সহজ। সব থেকে বড় সুবিধা হচ্ছে প্রয়োজন মুহূর্তে মহিলারাও এ গাছ থেকে অতি সহজে নারিকেল পাড়তে পারবে।