মণিরামপুরে স্বামী পরিত্যক্তাকে ঘর নির্মাণে বাধা দেয়ার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, মণিরামপুর>
হাজরাইল ঋষি পাড়ার স্বামী পরিত্যক্তা এক অসহায় মহিলার ঘর নির্মাণে বাধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। তার পরিবারে সকলকে ভয়ভীতি ও হুমকি দেয়া হচ্ছে। বিষয়টি থানায় জানানো হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হাজরাইল গ্রামের নিমাই দাসের কন্যা চপলা (৩০), তার পিতার বাস্ত বাড়ি সংলগ্ন হাল ৯৩ দাগের ২৪ শতক জমির মধ্যে ৭ শতক জমি ১০/০৪/০৮ তারিখে ৩২৭৪ নম্বর কবলা দলিল মূলে ক্রয় করে সেখানে তার একমাত্র পুত্র অরুপকে (১৩) নিয়ে বসবাস করার জন্য গত কয়েকদিন ধরে সেখানে মাটি দিয়ে ঘর তৈরি করছেন। তিনি অভিযোগ করেন- প্রতিবেশী অপু ও তারক তাকে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে ঘর নির্মাণে বাধা প্রদান করছে। এ কারনে তিনি ঘরের ছাউনী দিতে পারছেন না। ফলে তাকে একমাত্র সন্তানকে নিয়ে খোলা আকাশের নিচে থাকার মতো অবস্থা হয়েছে। প্রতিপক্ষ অপু ও তারকের দাবি চপলার ঘরের মাঝখান দিয়ে তাদেরসহ পথচারীদের যাতায়াতের রাস্তা দিতে হবে। এই রাস্তা দিয়ে সকলে কালী তলায় যাতায়াত করবে।
সরেজমিন দেখা গেছে, হাজরাইল রাধা গোবিন্দ মন্দির থেকে কালীতলা পর্যন্ত যাতায়াতের রাস্তা আছে। এই রাস্তার একটি বড় অংশ অসহায় চপলার জমি দিয়ে গেছে। অপু ও তারক গং এই রাস্তাটি পরিবর্তন করে অসহায় চপলার বসত বাড়ির মাঝ দিয়ে জোর পূর্বক নেয়ার জন্য অপতৎপরতা চালাচ্ছে।
স্থানীয় শ্যামল, পলাশ, দুলাল, হরিপদসহ শতাধিক ব্যক্তি জানান, চপলার বাড়ির মাঝখান দিয়ে রাস্তা নতুন করে না করে চপলার বাড়ির পাশ দিয়ে তার জমি হয়ে রাস্তা করলে কালীতলায় অনায়াসে যাতায়াত করা যাবে। কিন্তু চপলা অসহায় বলে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর পূর্বক তার ঘর নির্মাণ বন্ধ করে তার বাড়ির মধ্যো দিয়ে রাস্তা নেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।
এদিকে বিষয়টি নিয়ে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে শনিবার সেখানে পুলিশ উপস্থিত হয়। পুলিশের এসআই তাপষ কুমার জানান, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির কোন অবনতি না ঘটে সেজন্য এই বিষয়টি নিয়ে সোমবার বিকালে থানায় বসে উভয় পক্ষের মধ্যে শান্তিপূর্ণ মীমাংসা করে দেয়া হবে।