বেনাপোলে স্মৃতিচারণের অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধাদের মিলন মেলা

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল>
বিজয়ের মাসে গতকাল মুক্তিযোদ্ধাদের এক মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে বেনাপোল ইউনিয়ন পরিষদে। চেয়ারম্যান বজলুর রহমানের আয়োজনে মুক্তিযোদ্ধারা মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের স্মৃতিচারণ করেন।
ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শাহ আলম হাওলাদারের সভাপতিত্বে মহান বিজয়ের মাস শুক্রবার সকালে ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে এ মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় শার্শা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর হোসেনকে সম্মাননা জানান আয়োজক।
চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বজলুর রহমান অনুষ্ঠানে বলেন, যাদের নিস্বার্থ দেশপ্রেম, আত্ম বলিদান ও ভালোবাসার ফসল আজকের সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ। সে সকল মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সরকার যেমন কৃতজ্ঞ তেমনি আমরাও তৃর্ণমূল আওয়ামীগ নেতা-কর্মীরা তাদেরকে জানাই অন্তরের অন্তস্থল থেকে রক্তিম সালাম।
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ডেপুটি কমান্ডার নাসির উদ্দিন ’৭১-এর সেই বীরত্বগাথা আত্ম বিসর্জনকারী বাংলার দামাল ছেলেদের জীবনকাহিনী তুলে ধরেন।
এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর হোসেন বলেন, বাংলাদেশ জন্মের নায়ক ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, আর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানিত করেছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা তথা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। যার অকৃত্রিম ভালোবাসায় স্বাধীনতার দীর্ঘ বছরে আজ মুক্তিযোদ্ধাদের আর কারো মুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হচ্ছে না। প্রতিমাসের প্রথম সপ্তাহেই চাকরিজীবীদের মতো প্রত্যেক মুক্তিযোদ্ধাকে ভাতা দেওয়া হচ্ছে ১০হাজার টাকা। এছাড়া চিকিৎসা, বাসস্থান, ভ্রমণ, সন্তানাদের চাকরিসহ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য রেখেছেন বিশেষ বরাদ্দ। তাই আগামী সকল নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগের সকল প্রার্থীকে ভোট দিয়ে দেশসেবক হিসাবে নির্বাচিত করার আহবান জানান এ মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে আরো উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোফাজ্জেল হোসেন বাবলু, আবু সামা, হাজী মোহাম্মদ আলী, আব্দুর রশিদ, আব্দুল মান্নান, কাওছার আলী, আয়াছিন আলী, মাহবুবুর রহমান ওরফে মধু খান, দীন ইসলাম ওরফে দিনু প্রমুখ।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হোসেন।