নাটিমা-কুড়িপোল আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয় > সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, মহেশপুর>
ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার নাটিমা-কুড়িপোল আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসালাম ও প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে এক লাখ ৭৭ হাজার ৫০০ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে ঝিনাইদহ আদালতে পিটিশন দায়ের করা হয়েছে। এ অভিযোগটি দায়ের করেছেন মহেশপুর উপজেলার নাটিমা ইউনিয়নের ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি। আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়ের করা অভিযোগটি আমলে নিয়ে মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জকে (ওসি) তদন্ত পুর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।
অভিযোগে বলা হয়েছে- নাটিমা কুড়িপোল আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংস্কারের জন্য ঝিনাইদহ জেলা পরিষদ ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরের ২৪৭ নম্বর প্রকল্পের অধীনে ২ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসালাম ও প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষের জন্য ৭ বান টিন যার মূল্য ১৭ হাজার ৫০০ টাকা, ২ হাজার টাকার কাঠ, মিস্ত্রি বাবদ ২ হাজার টাকা, পেরেক ও স্ক্রু বাবদ ১ হাজার টাকা বিদ্যালয় সংস্কারের জন্য খরচ করেন। বাকি ১ লাখ ৭৭ হাজার ৫০০ টাকা বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসালাম ও প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম আত্মসাত করেছেন।
আদালতে অভিযোগকারী জমির উদ্দিন জানান, নাটিমা কুড়িপোল আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসালাম ও প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি সংস্কার না করেই দুর্নীতির মাধ্যমে সরকারের টাকাগুলো আত্মসাত করেছে। ইতিপূর্বেও তাদের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ রয়েছে।
বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসালাম বিদ্যালয় সংস্কারের জন্য ২ লাখ টাকা বরাদ্দের কথা স্বীকার করে জানান, সবাই যে ভাবে কাজ করেছে আমরাও সেভাবেই কাজ করেছি। আমাদের বিরুদ্ধে আমালতে মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে।
নাটিমা কুড়িপোল আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম জানান, সংস্কারের জন্য জেলা পরিষদ ২ লাখ কাটা দেন বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসালামের ব্যাংক একাউন্টে। সেই টাকা দিয়ে তিনি টিন, কাঠ, বাস ও মিস্ত্রি বাবদ খরচ করেছেন। এর থেকে বেশি কিছু আমার জানা নেই।