চুড়ামনকাটিতে জমি দখলে ব্যর্থ হয়ে মসজিদে দাঁড়িয়ে হুমকি জনপ্রতিনিধির

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটিতে অবৈধভাবে জমি দখলে বাধা দেয়ায় দখল চেষ্টা চক্রের প্রধান আখতারুজ্জামান ওরফে আখতারসহ তার নেপথ্যে থাকা একজন প্রতিনিধি ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেছেন। তারা যে কোন উপায়ে ওই ৭ শতক জমি দখল করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে ভুক্তভোগী পরিবারকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোসহ হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় আতিয়ার রহমান বিশ্বাস গতকাল শুক্রবার যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিপি) করেছেন। এদিকে, এদিন জুম্মার নামাজের পর ওই জনপ্রতিনিধি একটি মসজিদে দাঁড়িয়ে পুনরায় জানি দখলের হুমকি দেয়ায় নতুন করে সমালোচিত হয়েছেন। আতিয়ার রহমান অভিযোগে বলেছেন, পুলিশি তদন্ত প্রতিবেদন শুনানির আগেই বৃহস্পতিবার স্থানীয় এক জনপ্রতিনিধির নেতৃত্বে ৭ শতক জামি অবৈধভাবে দখল করতে যায় ছাতিয়ানতলা গ্রামের আখতারসহ একদল ক্যাডার। তারা ওই জমিতে এক গাড়ি ইট ফেলে দখল করতে উদ্যত হয়। এ সময় ভুক্তভোগী পরিবার তাদের জমি দখলে বাধা প্রদান করেন। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে অবৈধ দখলদাররা জমি থেকে ইট সরিয়ে নিতে বাঁধ্য হয়। তিনি অভিযোগ করেন এ ঘটনার পর থেকেই ওই জনপ্রতিনিধি, জালিয়াতি করে জমির মালিক পরিচয়দানকারী আখতার ও তার ক্যাডাররা আতিয়ার রহমানের পরিবারের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। এমনকি আখতারের নেতৃত্বে ছাতিয়ানতলা গ্রামের আব্দুল জলিলসহ একদল সন্ত্রাসী আতিয়ার রহমানের বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোসহ জীবননাশের হুমকি দিয়ে আসে। এ ঘটনার পর থেকে তারা নিরাপত্তাহীনতায় দিনযাপন করছেন। কেননা ওই সন্ত্রাসীদের হামলায় তারা যে কোন সময় খুন জখমের শিকার হতে পারেন। এদিকে, গতকাল চুড়ামকাটি রেলস্টেশন মসজিদে জুম্মার নামাজ শেষে ওই জনপ্রতিনিধি মুসল্লীদের সামনে দাঁড়িয়ে ৭ শতক জমি যে কোন উপায়ে দখলের ঘোষণা দেয়ায় তিনি আবারো সমালোচিত হয়েছেন। সূত্র জানায়, ওই জনপ্রতিনিধি এ সময় বলেন, আপনারা তো জানেন ওই জমি দখলে বাঁধা দেয়া হয়েছে। আমি আপনাদের সামনে করে বলছি, আখতারের পক্ষে ওই জমি দখল করে নেয়া হবে। এতে ২/৩ জন খুন জখমের শিকার হলেও কোন সমস্যা নেই। ওই জনপ্রতিনিধির মসজিদে দাঁড়িয়ে এ ধরণের ঘোষণার পর অনেকেই বাইরে এসে তাকে নিয়ে সমালোচনা করেন।