সাম্য ও সম্প্রীতির ইফতার মসজিদে-১১: যশোর মার্কাজ মসজিদে প্রতি বৃহস্পতিবার ৪শ’ রোজাদারকে ইফতারে করানো হয়

মিরাজুর কবীর টিটো:
রমজান মাস মুসলমানদের জন্য ইবাদত বন্দেগির মাস। এ মাসে মানুষ রোজা রেখে নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চায়। রমজান মাসে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো ইফতারে করা। সারাদিন রোজা রেখে মুসলমানরা সন্ধ্যায় ইফতার করে। ইফতারে যশোর উপশহর মার্কাজ মসজিদে অংশ নেন স্থানীয় রোজাদার ব্যক্তিসহ বাইরের এলাকার তাবলীগ জামাতের মুসল্লিরা। প্রতি বৃহস্পতিবার মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে ৪শ’ রোজাদারকে এক ইফতার করানো হয়। এ মসজিদের খাদেম আব্দুর রহমান জানান, মার্কাজ মসজিদের কার্যক্রম পরিচালিত হয় সুরা সদস্যদের পরামর্শ অনুযায়ী। এখানে নির্দিষ্ট কোনো ইমাম বা মোয়াজ্জেম নেই। মসজিদ মাদ্রাসার শিক্ষকরা পর্যায়ক্রমে ইমাম ও ছাত্ররা মোয়াজ্জেমের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি জানান, প্রতি বৃহস্পতিবার বাদ আসর এ মসজিদে সাপ্তাহিক তাবলীগ জামাত বসে। তাবলীগ জামাতে স্থানীয় মুসল্লিসহ বাইরের এলাকা থেকে মুসল্লিরা অংশ নেন। তাবলীগ জামাতে ৪শ’ মুসল্লি অংশ নেন। এসব রোজাদার ব্যক্তিদের ইফতার করানো হয়। মসজিদ কমিটির অর্থায়নে এখানে সপ্তাহে একদিন বৃহস্পতিবার বেশি মুসল্লিরা উপস্থিত হন। তাই এ রমজান মাসে মসজিদ কমিটি তাদের ইফতার করান। মসজিদের তাবলীগ জামাতে আসা বাঘারপাড়ার রায়পুর গ্রামের বাসিন্দা মফিজুর রহমান জানান, যশোরে শুধু মার্কাজ মসজিদে তাবলীগ জামাতে এসেছেন তিনি। প্রতি বৃহস্পতিবার এখানে আসেন। যশোরসহ বাইরের এলাকার মুসল্লিরা এ মসজিদে আসেন। এসব মুসল্লিকে মসজিদ কমিটি ইফতারের ব্যবস্থা করে দেয়। আর যারা রাতে এ মসজিদে থাকেন তাদের জন্য থাকে সেহরি খাওয়ার ব্যবস্থা। একই কথা জানান উপশহর ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা রেজাউল করিম।