যশোরে কর্মসৃজন প্রকল্পের টাকা নিয়ে দুই ইউপি মেম্বারের মধ্যে হাতাহাতি

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরে কর্মসৃজন প্রকল্পের টাকা নিয়ে দুই ইউপি মেম্বারের মধ্যে হাতাহাতি হয়েছে। একে অপরকে ধারালো কাইচি দিয়ে আঘাত করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দুইজনই যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে কোতয়ালি থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে যশোর সদর উপজেলার হাশিমপুর বাজারে।
ইছালী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার এবং প্যানেল চেয়ারম্যান আনসার আলী অভিযোগ করেছেন, তিনি ওই ইউনিয়নের ৪০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্পের সভাপতি। বৃহস্পতিবার শ্রমিকদের টাকা দেয়ার জন্য তিনি হামিশপুর বাজারের অগ্রণী ব্যাংক থেকে ৫৩ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। ব্যাংকের নিচে নামা মাত্রই ৭ নম্বর ওয়র্ডের মেম্বার মোহাম্মাদ আলী কাউছার তার কাছে যান এবং টাকা দাবি করেন। তিনি সে সময় তাকে জানিয়ে দেন তার ৫জন লেবারের টাকা দেয়া হয়েছে। আরো টাকা দাবি করায় তিনি টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এ সময় কাউছার পাশের একটি টেইলার্স থেকে ধারালো কাইচি দিয়ে তাকে আঘাত করেন। এতে তিনি জখম হন। পরে তার কাছ থেকে ৫৩ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে।
কিন্তু এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার কাউছার। তিনি বলেছেন, মেম্বার আনসার একজন দুর্নীতিবাজ। কর্মসৃজন প্রকল্পের টাকা সে লুট করে। গতকাল প্রকল্পের আওতায় কাজ করা লেবারদের পেমেন্ট নেয়ার জন্য তার কাছে যাওয়া হয়েছিল। কিন্তু আনসার ৫ জনের টাকা ছাড়া অন্য কোন লেবারের পেমেন্ট দেবেনা। তার অনেক লেবার কাজ করেছে রাস্তায়। সেখানে ইউনিয়নের সচিব আব্দুল আলীম উপস্থিত ছিলেন। তার সামনে এই নিয়ে কথাকাটাকাটি হলে প্রথমে আনসার একটি কাইচি নিয়ে তাকে আঘাত করেন। তিনি কাইচি কেড়ে নেয়ার সময় উভয়ের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। সে সময় দুইজনের হাত কেটে যায়। তিনিও হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে কোতয়ালি থানায় অভিযোগ করেছেন।
এই বিষয়ে কোতয়ালি থানার এসআই জসিম উদ্দিন বৃহস্পতিবার রাত সোয়া নয়টার দিকে জানিয়েছেন, একজন মেম্বার (আনসার) আমার কাছে ফোন করেছিল অভিযোগ দেয়া নিয়ে। আমি এখনো লিখিত অভিযোগ হাতে পাইনি। থানায় গিয়ে দেখবো।