কাশ্মিরে লস্কর ই তৈয়বার শীর্ষ নেতা নিহত

 রয়টার্স>>ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে প্রায় সাত ঘণ্টার বন্দুক যুদ্ধে লস্কর-ই-তৈয়বার শীর্ষ নেতা বশির লস্করি এবং তার এক সহযোগী নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী।

ভারত সরকারের মোস্ট-ওয়ান্টেড তালিকায় থাকা বশিরের মাথার দাম ১০ লাখ রুপি ঘোষণা করা হয়েছিল।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, শনিবার কাশ্মিরের অনন্তনাগ জেলার দাইলগাম গ্রামে সেনাবাহিনী ও পুলিশ যৌথ অভিযান চালায়।

গত ১৬ জুন বশিরের নেতৃত্বেই জঙ্গিদের একটি দল আচাবাল পুলিশ স্টেশনে চোরাগোপ্তা হামলা চালিয়ে এসএইচও ফিরোজ দার এবং আরও পাঁচ পুলিশ সদস্যকে হত্যা করে।

দাইলগাম গ্রামে একটি বাড়িতে এই অভিযানের সময় গোলাগুলির মধ্যে পড়ে দুই বেসামরিক নাগরিক নিহত এবং আরও দুইজন আহত হয়েছেন বলে জানান জাম্মু ও কাশ্মির পুলিশের মহাপরিদর্শক মুনির খান।

বশিরের সহযোগীর নাম আজাদ মালিক বলেও জানান তিনি।

অভিযানের বিষয়ে রাজ্য পুলিশ প্রধান এসপি ভাইদ বলেন, “দুই জঙ্গি বিশেষ করে বশির লস্করিকে হত্যা করে আমাদের সেনা ও পুলিশ সদস্যরা প্রশংসনীয় কাজ করেছেন। বশিরের নেতৃত্বেই গত ১৬ জুন একদল জঙ্গি আমাদের একজন স্টেশন হাউজ অফিসারসহ ছয় পুলিশ সদস্যকে হত্যা করে।”

লস্কর ই তৈয়বা জঙ্গিদের হামলায় নিহত এসএইচও ফিরোজ দার।

লস্কর ই তৈয়বা জঙ্গিদের হামলায় নিহত এসএইচও ফিরোজ দার।
এনডিটিভি জানায়, দাইলগাম গ্রামে লস্কর জঙ্গিরা অবস্থান করছে এমন নিশ্চিত তথ্যের ভিত্তিতে শনিবার ভোরে নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা গ্রামটি ঘিরে ফেলে। এ সময় জঙ্গিরা ১৭ জন বেসামরিক নাগরিককে জিম্মি করে তাদের মানবঢাল হিসেবে ব্যবহারের চেষ্টা করে।

বিকালের দিকে ১৭ জিম্মিকে উদ্ধারের পর মূল অভিযান শুরু হয়।

কিন্তু অভিযানের মধ্যে স্থানীয়রা নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে।

গোলাগুলির মধ্যে পড়ে এক নারীসহ দুইজন নিহত হয়। তারা হলেন, তাহিরা বেগম (৪৪) ও শাদাব আহমদ (২১)। হাসপাতালে নেওয়ার পথে ওই দুইজনের মৃত্যু হয়।