যশোর এমএম কলেজের পুকুরে গোসল করতে গিয়ে হামলার শিকার দুই ভাই

নিজস্ব প্রতিবেদক:যশোর সরকারি এমএম কলেজের পুকুরে গোসল করতে গিয়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন দুই ভাই। তাদের গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হলেন যশোর শহরের পুরতান কসবা কাজী পাড়ার শেখ তৌহিদের ছেলে সাইদুল ইসলাম বাপ্পী (২২) ও ওহিদুল ইসলাম রাব্বি (১৮)।
তারা অভিযোগ করেছেন, শনিবার দুপুরে তারা দুই ভাই এমএম কলেজের আসাদ হলের সামনে পুকুরে গোসল করতে যান। গোসল করার সময় ওই হলের কতিপয় ছাত্র তাদের নেশা করার অভিযোগ তোলে। তারা প্রতিবাদ করলে তাদের দুই ভাইকে লোহার রড, কাঠ, লাঠি. এবং চাকু দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে। এতে বড় ভাই বাপ্পীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত হয়। তার একটি হাত ও পা ভেঙ্গে গেছে। আর ছোট ভাই রাব্বীর একটি হাত ভেঙ্গে গেছে। তবে হামলাকারীদের পরিচয় তারা দিতে পারেনি।
বাপ্পী ঢাকায় একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। আর রাব্বি যশোর ক্যান্টেনমেন্ট কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।
তবে এমএম কলেজের আসাদ হলের একটি সূত্র জানিয়েছে, একটি ছাত্র সংগঠনের সভাপতি, দপ্তর সম্পাদকসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী ওই দুই সহদরকে বেধড়ক মারপিট করেছে। পুকুরে গোসল করা নিয়ে তাদের সাথে প্রথমে বির্তক হয়। এরপর লাঠি সোটা নিয়ে বেধড়ক মারপিট করে। পুলিশের একটি সূত্র থেকে এই তথ্য জানাগেছে।
এই বিষয় হাসপাতালের চিকিৎসক কল্লোল কুমার সাহা জানিয়েছেন, দুই ভাইয়ের শরীরের একাধিক স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তবে পরীক্ষা নিরীক্ষা ছাড়া সঠিক অবস্থা বলা যাবেনা।
এই বিষয়ে কোতয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজমল হুদা জানিয়েছেন, দুপুরে এমন একটি সংবাদ পেয়ে পুলিশ আসাদ হলের পুকুর পাড়ে গিয়ে দুই ভাইকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। কারা তাদের মেরেছে তা তারা ঠিকমত বলতে পারেনি। পুকুরে গোসল নিয়ে ঝামেলা হয়েছিল বলে তিনি জানান। এই ঘটনায় থানায় কেউ অভিযোগ দেয়নি।