ঝিকরগাছার নীলকুঠি পার্কটি ধ্বংসে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরের ঝিকরগাছার নীলকুঠি জঙ্গল পার্কটি ধ্বংসের ষড়যন্ত্রে উঠেপড়ে লেগেছে স্থানীয় একটি চক্র। ঈদে বকশিসের নামে চাঁদা না দেয়ার তারা ক্ষিপ্ত হয়ে এ ষড়যন্ত্র করছে। পার্কের জমি মালিকদের কাছ থেকে ও খাল সরকারের কাছ থেকে ইজারা নিয়ে পার্ক পরিচালনা করা হচ্ছে। গত মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে আমার বিরুদ্ধে পার্কের নামে জমি ও খাল দখলের যে অভিযোগ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।
গতকাল বৃহস্পতিবার প্রেসক্লাব যশোরে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেছেন পার্কের পরিচালক উলাশী ইউনিয়নের মেম্বর তরিকুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আব্দুল খালেক, আব্দুর রহমান, আব্দুর রশীদ, এনায়েত ঢালী, সাধু খা, শরিফুল ইসলাম, আব্দুস সামাদ প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ঝিকরগাছার নীলকুটি জঙ্গল বাড়িতে পার্ক তৈরির পর এলাকার পরিচিতি ও বিনোদনের নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। এই পার্কের কারণে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। সরকারের সকল নিয়মনীতি মেনে স্থানীয় প্রশাসনের নজরদারিতে আমরা সুনামের সাথে পার্কটি পরিচালনা করে আসছি। পার্ক পরিচালনায় সুনাম বৃদ্ধি পাওয়ায় আমার প্রতিপক্ষ একটি গ্রুপ পার্কের ক্ষতি করার উদ্দ্যেশ্যে নানা ষড়যন্ত্র করে আসছে।
তিনি বলেন, গত মঙ্গলবার প্রেসক্লাব যশোরে আমার প্রতিপক্ষ গ্রুপের কালু, মোস্ত, শহিদুল, আনিচুর, মহিউদ্দিন ও কামাল একটি সংবাদ সম্মেলন করে আমার বিরুদ্ধে জমি ও খাল দখলের অভিযোগ করেন। প্রকৃত পক্ষে নীলকুঠি পার্কে ৩০ বিঘা জমি নেই। ২০ বিঘা জমির উপর এ পার্ক প্রতিষ্ঠিত। পার্কের মধ্যে মোস্ত খা ও ফিরোজের ১০ কাঠা ও মহিউদ্দিনের ১২ কাঠা জমি আছে। যে জমিতে তারা গাছপালা রোপন করে ভোগ দখলে আছে। এ ছাড়া ফজলু ও ইব্রাহিম মেম্বরের যে দুই বিঘা জমি দখলের অভিযোগ করা হয়েছে তা তারা জাল দলিল করে দীর্ঘদিন ভোগদখল করে আসছিল। বর্তমানে এ জমির মালিক মামলা করে তা দখলে নিয়েছে।
তিনি আরও বলেন, একটি কুচক্রি মহল আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ হিংসাপরায়ন হয়ে পার্কের সুনাম নষ্ট করার জন্য অতি উৎসাহী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। গত ঈদের সময় কালু, মোস্ত, মহিউদ্দিনরা ঈদ বকশিসের নামে আমার কাছে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে। চাঁদার টাকা না দেয়ায় তার ক্ষিপ্ত হয়ে এ পার্ক ধ্বংসের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। এ ষড়যন্ত্রের হাত থেকে পার্কটি রক্ষা করতে তিনি যশোরবাসীর সহযোগিতা কামনা করেছেন।