খুলনার প্রবীণ সাংবাদিক আনোয়ার হোসেনের জীবনাবসান

নিজস্ব প্রতিবেদক>
খুলনার প্রবীণ সাংবাদিক, দৈনিক জন্মভূমির বার্তা সম্পাদক, খুলনা প্রেস ক্লাবের সাবেক কোষাধ্যক্ষ,অবিভক্ত খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আনোয়ার আহমেদ আর নেই। টানা ৮দিন অচেতন থাকার পর পরিবার, আত্মীয়, সাংবাদিক ও শুভাকাঙ্খীদের শোক সাগরে ভাসিয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টায় রাজধানী ঢাকার লিজেন্ড হাসাপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না লিল্লাহি রাজিউন।
মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৪ বছর। তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের জনক ছিলেন। তার মৃত্যুতে খুলনার সাংবাদিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে। তিনি ১৯৫৩ সালে বৃহত্তর কুষ্টিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৫৬ সালে তার পিতার সাথে স্বপরিবারে খুলনার বসুপাড়া ক্রস রোডে স্থায়ী বসবাস শুরু করেন। তার পিতার নাম শেখ আব্দুল জব্বার এবং মায়ের নাম আনোয়ারা খাতুন। ৬ ভাইয়ের মধ্যে তিনি ছিলেন বড়। বর্তমানে তিনি খুলনার হাজী তমিজ উদ্দিন সড়কে নিজ বাসভবনে বসবাস করতেন। মরহুম সাংবাদিক আনোয়ার আহমেদ খুলনার সংবাদপত্র জগতে ৪০বছর ধরে সুনামের সাথে কাজ করেছেন এবং তিনি খুলনা ও ঢাকায় কর্মরত অনেক প্রতিভাবান ও প্রতিষ্ঠিত সাংবাদিকের শিক্ষা গুরু হিসেবে সুপরিচিত হয়ে আছেন। সংবাদপত্রের সকল স্তরের দক্ষতা অর্জনকারী আনোয়ার আহমেদ নিজেই ক্রীড়া প্রতিবেদক ও বিশ্লেষক ছিলেন।
বাংলা ভাষার উপর প্রবল দক্ষতা, ভাষার সুনিপন শব্দ ব্যবহারে তিনি ছিলেন অপ্রতিদ্বন্দ্বী। বিশেষ কবি, লেখক হিসেবেও তার সুখ্যাতি ছিল। তিনি আশির দশক থেকে বাংলাদেশ বেতার খুলনা কেন্দ্রের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের স্ক্রিপ্ট রাইটার, দৃষ্টিপাত ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানের গ্রন্থণা করেছেন। প্রকাশিত হয়েছে জলবায়ূ পরিবর্তন জনিত কারণে উপকূলীয় এলাকার সমস্যা-সমাধান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও দুর্যোগ পরবর্তী করণীয় শীর্ষক একাধিক বই।
সাংবাদিক আনোয়ার আহমেদ ¯œাতক শেষ করে সরকারি চাকরীতে না যেয়ে সাংবাদিকতা পেশা বেছে নেন। তিনি ১৯৭৭ সালে অধূনালুপ্ত খুলনার প্রথম দৈনিক সংবাদপত্র দৈনিক জনবার্তায় সহকারী সম্পাদক হিসেবে যোগদান করেন। ২০০৭ সালে তিনি দৈনিক জন্মভূমিতে যোগ দেন এবং মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি সে দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করে গেছেন। সুদীর্ঘ ৪০ বছর সংবাদপত্র জগতে থেকে তিনি খুলনা প্রেসক্লাবের গঠনতন্ত্র প্রণেতাদের অন্যতম সদস্য ছিলেন। এছাড়া খুলনা প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষসহ নির্বাহী কমিটির বিভিন্ন পদে বিভিন্ন সময় দায়িত্ব পালন করেন। তিনি অবিভক্ত খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন এবং মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি হিসেবে জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত দায়িত্বে ছিলেন।
গত ৪ জুলাই দুপুরে আকস্মিকভাবে তিনি নিজ বাসভবনে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ জনিত রোগে আক্রান্ত হন। তাকে অচেতন অবস্থায় দ্রুত খুলনার গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভতি করা হয়। তার অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় ওই দিন রাতে তাকে ঢাকায় নেওয়া এবং ৫জুলাই ঢাকার মহাখালীস্থ বেসরকারি ইউনিভার্সাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেও তার অবস্থার কোনো উন্নতি না হওয়ায় গত ৯জুলাই উত্তরা লিজেন্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
বার্তা সম্পাদক আনোয়ার আহমেদের মত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ,আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি দিয়েছেন দৈনিক জন্মভূমি’র প্রকাশক ও প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব আসিব কবীর। শোক প্রকাশ করেছেন দৈনিক জন্মভূমির প্রধান সম্পাদক মনিরুল হুদা,সম্পাদক ওয়াদুদুর রহমান পান্না,উপদেষ্টা সম্পাদক সাধন ঘোষ,চিফ রিপোর্টার সোহরাব হোসেন প্রমুখ।
এছাড়া করেছেন খুলনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এস এম হাবিব ও সাধারণ সম্পাদক সুবীর কুমার রায়সহ কার্য্যনির্বাহী পরিষদের সদস্যবৃন্দ। সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের জেইউজে সভাপতি নূর ইসলাম, সহসভাপতি শহিদ জয়, সাধারণ সম্পাদক এম. আইউবসহ সকল সদস্য।
শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক এমপি এম নুরুল ইসলাম দাদু ভাই, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, খুলনা মহানগর সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক ও কেসিসির মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, খুলনা জেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাড. এস এম শফিকুল আলম মনা ও সাধারণ সম্পাদক আমীর এজাজ খান
প্রমুখ।