যশোরে অবৈধ মশার কয়েল কারখানা সিলগালা, জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর শহরতলীর বালিয়াডাঙ্গার রাসেল এন্টারপ্রাইজের একটি মশার কয়েল কারখানা সিলগালা ও জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আবাসিক এলাকায় অবৈধভাবে স্থাপন, শব্দ ও বায়ু দূষনের অপরাধে এ কারখানা সিলগালা করা হয়।
অপরদিকে চৌগাছা উপজেলার সলুয়া বাজারের একটি খাবারের হোটেল ও ফাস্টফুডের দোকান মালিককে জরিমানা করেছেন অপর ভ্রাম্যমাণ আদলত। মঙ্গলবার পরিচালিত এ ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.আনিসুর রহমান, জহির ইমাম ও আব্দুল্লাহ আল মাহাফুজ।
আদালতের পেশকার শেখ জালাল উদ্দীন জানান, বিকেল ৩টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.আনিসুর রহমানের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত বালিয়াডাঙ্গার (বিসিক সংলগ্ন) আবাসিক এলাকায় ‘রাসেল এন্টারপ্রাইজ’ নামে একটি মশার কয়েল কারখানায় অভিযান চালান। এ সময় কারখানার মালিক আবুল কাশেম কৌশলে পালিয়ে যায়। আদালত আবাসিক এলাকায় অবৈধভাবে কয়েল কারখানা স্থাপন, পরিবেশ অধিদফতরের ছাড়পত্র, এলাকায় বায়ু ও শব্দ দূষণ এবং কর্মচারীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে কাজ করানোর অপরাধে মশার কয়েল কারখানা সিলগালা করে দেয়া হয়। একই সাথে মালিক আবুল কাশেমের নামে মামলা দিয়ে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন ভোক্তা অধিদফতরের সহকারি পরিচালক সোহেল শেখ, পরিবেশ অধিদফতরের সহকারি বায়ো-কেমিস্ট নিখিল চন্দ্র ঢালী।
বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জহির ইমামের নেতৃত্বে পরিচালিত একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত চৌগাছা উপজেলার কেয়া হোটেল এন্ড মিষ্টান্ন ভান্ডারে অভিযান চালান। এ সময় সেখানে নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ দেখতে পাওয়ায় হোটেল মালিক শহিদুল ইসলামের নামে মামলা দিয়ে ৪ হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত।
এছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ-আল-মাহফুজের নেতৃত্বে পরিচালিত একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত একই সময় সলুয়া বাজারের বারিস ফাস্টফুডের দোকানে অভিযান চালান। এ সময় ওই দোকান থেকে মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য জব্দ করা হয়। পাশাপাশি মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য রাখার অপরাধে দোকান মালিক আব্দুল হামিদের নামে মামলা দিয়ে ৫শ’ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। অভিযানকালে উপস্থিত ছিলেন পেশকার শেখ জালাল উদ্দিন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য।