ভাই ভাবির বিরুদ্ধে মারধর ও ভাঙচুরের অভিযোগে কলেজ শিক্ষকের মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর শহরের রেলগেট এলাকায় ঈদের দিন তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্যান্টনমেন্ট কলেজের প্রভাষক সালাহউদ্দীন, তার স্ত্রী আফসানা মিমকে মারধর ও আসবাবপত্র ভাঙচুর করার অভিযোগে কোতয়ালি মডেল থানায় একটি মামলা হয়েছে। আসামিরা হলো, তার বড় ভাই মোহাম্মদ আলী স্বপন, ভাবি শামিম আরা, ভাইয়ের মেয়ে পপি ও আরেক ভাই আহনাফ তাহমিদ প্রমা।
যশোর ক্যান্টমমেন্ট কলেজের প্রভাষক সালাহউদ্দীন মামলায় অভিযোগ করেছেন, তার ভাইয়েরা এবং তারা একই বাড়িতে পৃথকভাবে বসবাস করেন। তাদের ঘর পাশাপাশি। তার (সালাহউদ্দীন) মেয়ে সামির বয়স দুই বছর। সে ঈদেরদিন অর্থাৎ ২ সেপ্টেম্বর সকালে বারবার রাস্তায় ছুটে যাচ্ছিলো। প্রতিবারই তার স্ত্রী আফসানা তাকে রাস্তা থেকে ধরে আনেন। কিন্তু তার এভাবে রাস্তায় যাওয়া ঠেকাতে স্ত্রী আফসানা মিম বাড়ি থেকে বের হওয়া একটি পথ বন্ধ করে দেন। তবে তিনি একটি বিকল্প পথ খুলে রাখেন। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে তার বড় ভাই তাকে গালিগালাজ করেন। প্রতিবাদ করলে বড় ভাইসহ অন্যরা লাঠিসোটা নিয়ে তাকে মারধর করেন। এ সময় তার স্ত্রী ঠেকাতে ছুটে এলে তাকেও মারধর করা হয় এবং শ্লীলতাহানি ঘটানো হয়। এছাড়া অভিযুক্তরা তার ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে এবং চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যার হাসপাতালে নিয়ে যায়।