মিরপুরের ‘জঙ্গি’ আস্তানায় বিস্ফোরণ

 

অপরাধ বিষয়ক প্রধান প্রতিবেদক>

জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঢাকার মিরপুরে ঘিরে রাখা বাড়িতে মঙ্গলবার রাতে কয়েক দফা বিস্ফোরণে আলোকিত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঢাকার মিরপুরে ঘিরে রাখা বাড়িতে মঙ্গলবার রাতে কয়েক দফা বিস্ফোরণে আলোকিত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

ঢাকার মিরপুরে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা বাড়িতে কয়েক দফা বিস্ফোরণ ঘটেছে।

সন্দেহভাজন জঙ্গি আবদুল্লাহ আত্মসমর্পণ করবেন বলে র‌্যাব সদস্যদের অপেক্ষার মধ্যে মঙ্গলবার রাত পৌনে ১০টার দিকে সেখানে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে।

এরপর ওই বাড়ি থেকে ব্যাপকভাবে ধোঁয়া আসতে থাকে বলে ঘটনাস্থল থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রতিবেদক লিটন হায়দার ও কামাল তালুকদার জানান।

পরে সেখানে কয়েক দফা গুলির শব্দ শুনতে পাওয়ার কথা জানিয়েছেন তারা।

টাঙ্গাইলের এলেঙ্গায় সোমবার রাতে এক বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ‘জেএমবির জঙ্গি’ দুই ভাইকে ড্রোন ও দেশীয় অস্ত্রসহ আটকের পর তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মধ্যরাতে মিরপুরে র‌্যাবের এই অভিযান শুরু হয়।

মাজার রোডের পাশে বর্ধনবাড়ি ভাঙ্গা ওয়ালের গলির ২/৩-বি হোল্ডিংয়ে ছয় তলা ওই বাড়ির পঞ্চম তলায় আবদুল্লাহ, তার দুই স্ত্রী, দুই সন্তান ও দুই সহযোগীসহ মোট সাতজন অবস্থান নিয়েছিলেন র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ দুপুরে জানান।

র‌্যাবের ভাষ্য অনুযায়ী, আবদুল্লাহ একজন ‘দুর্ধর্ষ জঙ্গি’, সে ২০০৫ সাল থেকে জঙ্গিবাদে জড়িত। মিরপুর মাজার রোডের দীর্ঘদিনের এই বাসিন্দা ইলেকট্রনিক সামগ্রী মেরামতের কাজ করেন।

তার কক্ষে ৫০টির মতো আইইডি (ইমপ্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস) ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের দাহ্য পদার্থ থাকার কথা আবদুল্লাহ র‌্যাব জানিয়েছিলেন বলে বাহিনীর মহাপরিচালক বলেন।

“গত রাতে অভিযান শুরুর পর ওইদিক থেকে গুলি করা হয়েছিল। তার কাছে একটি পিস্তলও থাকতে পারে বলে আমরা ধারণা করছি,” বলেন তিনি।

মধ্যরাতে বাড়িটি ঘেরাওয়ের পর থেকে সারা দিন ওই ভবনের অন্যান্য ফ্ল্যাটের বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি আবদুল্লাহর সঙ্গে যোগাযোগ করে তাকে আত্মসমর্পণে রাজি করানোর চেষ্টা করে র‌্যাব।

সন্ধ্যায় বাহিনীর আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান ঘটনাস্থলের কাছে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, আবদুল্লাহ আত্মসমর্পণে রাজি হয়েছে।

“সাড়ে ৭টা থেকে ৮টার মধ্যে সে আত্মসমর্পণ করবে বলে আমাদের জানিয়েছে।”