মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাওয়ের ঘোষণা গণজাগরণ মঞ্চের

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি >
মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উপর নিপীড়ন বন্ধের দাবিতে ঢাকায় দেশটির দূতাবাস ঘেরাওয়ের ঘোষণা দিয়েছে গণজাগরণ মঞ্চ।

একই দাবিতে শুক্রবার বিকালে এক বিক্ষোভ মিছিল শেষে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরে সামনে সমাবেশে মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার সোমবার বিকালের এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ওই দিন বিকাল ৩টার দিকে গুলশান ২ নম্বর গোলচত্বরে জমায়েত হয়ে মিছিলসহ মিয়ানমারের দূতাবাস অভিমুখে ঘোরাও কর্মসূচি শুরু হবে।

ইমরান বলেন, ‘বার্মা’য় চলমান গণহত্যা ও জাতিগত নিপীড়ন বন্ধে আজকের এই ঢাকা র‌্যালি কর্মসূচি। তিন দিনের মধ্যে বার্মা সরকার গণহত্যা বন্ধ না করলে এবং তার নাগরিকদের ফেরত না নিলে দূতাবাস ঘেরাও করা হবে।

“আমরা দেখছি, ভিডিও ফুটেজগুলোতে, কীভাবে মানুষের বাড়িতে আগুন দেওয়া হচ্ছে। আমরা দেখেছি, কীভাবে মানুষ নদী, সাগর ডিঙিয়ে শুধুমাত্র বেঁচে থাকার আশায় বাংলাদেশের সীমান্তে ভিড় করছে।”

রোহিঙ্গাদের উপর ‘গণহত্যা ও নিপীড়নের’ জন্য মিয়ানমারের নেতা অং সান সুচির নোবেল শান্তি পুরস্কার স্থগিতের দাবি জানান তিনি।

একই জায়গায় বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন বন্ধ ও তাদের জাতিগতভাবে নিশ্চিহ্ন করার প্রতিবাদে সমাবেশ করেন কয়েকজন পেশাজীবী।

প্রতিবাদী নাগরিক সমাজের ব্যানারে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ভাস্কর রাশা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ফাহমিদুল হক ও প্রকৌশলী সাইফুল্লাহ এতে অংশ নেন।