আওয়ামী লীগ নেতা মাহতাব কারাগারে> আটকের প্রতিবাদে বেনাপোলে বিক্ষোভ সমাবেশ, মুক্তি দাবি

 

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল>
বেনাপোল পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহতাব উদ্দিনকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্পের সদস্যরা মঙ্গলবার তাকে আটকের পর বুধবার আদালতে সোপর্দ করে। বেনাপোলের ইবাদত হোসেন হত্যা মামলায় সন্ধিগ্ধ আসামি হিসেবে সোপর্দ করা হলে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক বুলবুল ইসলাম তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। মাহতাব বেনাপোল পৌর এলাকার মৃত হোসেন আলীর ছেলে।
এদিকে, মাহতাব উদ্দিনকে আটকের প্রতিবাদে ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে গতকাল বুধবার বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে পৌর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ, বাস্তহারালীগসহ সহযোগী সংগঠন। এসময় তার বিরুদ্ধে আনা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি করেন বিক্ষোভকারীরা।
মাহতাব উদ্দিন জানিয়েছেন, মঙ্গলবার বিকেলে স্থানীয় মসজিদে নামাজ পড়ে বিজিবি ক্যাম্পের সামনে তার অফিসে গেলে র‌্যাব আটক করে যশোর ক্যাম্পে নিয়ে আসে। র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদের সময় জানতে পারি আমাকে ইবাদত হত্যা মামলায় আটক করেছে। কিন্তু আমি ইবাদত হত্যার ব্যাপারে কোন কিছু জানিনা।
সুত্র জানায়, ২০১৪ সালের ৪ এপ্রিল রাতে বেনাপোল থেকে অপহরণ হয় ইবাদত হোসেন। রাতে জামতলা বাজারের অদুরে গুরুতর আহত অবস্থায় ইবাদত হোসেনকে উদ্ধার করা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে ২১ এপ্রিল ইবাদত হোসেন মারা যান। ২৩ এপ্রিল নিহতের ভাই জাকির হোসেন অপরিচিত ৭/৮ জনকে আসামি করে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলাটি প্রথমে থানা পুলিশ পরে ডিবি পুলিশ তদন্তের দায়িত্ব পায়। মামলার তদন্ত শেষে ওই বছরের ১৫ নভেম্বর ৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আবুল খায়ের মোল্লা। পরবর্তীতে মামলার বাদী চার্জশিটের উপর নারাজি আবেদন করেন আদালতে। শুনানি শেষে বিচারক র‌্যাব-৬ কে তদন্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিলের আদেশ দেন। বর্তমানে মামলাটি র‌্যাব র‌্যাব-৬ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কুদ্দুস ফারাজী তদন্ত করছেন। মঙ্গলবার বিকেলে এ হত্যা মামলায় সন্দিগ্ধ আসামি হিসেবে মাহতাব উদ্দিনকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেন। এরপর বিচারক আসামি মাহতাবকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মাহতাব উদ্দিনকে আটক করে নিয়ে যাওয়ায় খবরে ক্ষোভে ফেটে পড়ে নেতাকর্মীরা। বুধবার বিকালে তাকে আটকের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা। ছোট আঁচড়া মোড় আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে কাস্টমস এলাকা প্রদক্ষিণ শেষে আবারো পার্টি অফিসের সামনে এসে শেষ হয়।
বেনাপোল পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ এনামুল হক মুকুলের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বজলুর রহমান, বেনাপোল পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সহসভাপতি আলী কদর সাগর, শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী মন্টু, আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম, বাবু মেম্বর, ছাত্রলীগ নেতা ইমরান হোসেন, রুবেল, কামাল হোসেন, খায়রুল ইসলাম প্রমুখ। সমাবেশ থেকে তার বিরুদ্ধে সন্দিগ্ধভাবে আনা হত্যা মামলা প্রত্যাহার ও তার নি:শর্ত মুক্তির দাবি জানানো হয়।