বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলে যশোরে চ্যাম্পিয়ন নাভারণ ও নিমতলী প্রাথমিক বিদ্যালয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক:যশোর সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিজেও একজন ফুটবলার ছিলেন। তার ছেলে শেখ কামাল বাংলাদেশের আধুনিক ফুটবলের পথপ্রদর্শক। বর্তমান সরকারের প্রধান শেখ হাসিনা নিজে একজন ক্রীড়ামোদী। সর্বোপরি আওয়ামী লীগ সরকার খেলা বান্ধব সরকার। ক্রিকেটের মাধ্যমে বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে এখন সুপরিচিত একটি নাম। লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলাকে এগিয়ে নিতে সরকার নিরলস কাজ করে চলেছে। তাই এসকল খুদে খেলোয়াড়রায় আগামী দিনের বড় তারকা হবে।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের যশোর জেলা পর্যায়ের পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
গতকাল সদরের বিরামপুর আদর্শ প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে দুটিফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু ফুটবলে ঝিকরগাছার নাভারন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বঙ্গমাতা ফুটবলের সদরের নিমতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন হযেছে। একই সাথে চ্যাম্পিয়ন এ দুটি দল বিভাগীয় পর্যায়ে খেলার যোগ্যতা অর্জন করলো।
বঙ্গবন্ধু ফুটবলের ফাইনালে ঝিকরগাছার নাভারন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ১-০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছে চৌগাছার বাদে খানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে। নাভারন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শাহরুক হোসেন ৪৭ মিনিটে একমাত্র গোল করে। ম্যাচ সেরা হন শাহরুক।
বঙ্গমাতা ফুটবলের ফাইনালে সদরের নিমতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় টাইব্রেকারের ২-১ গোলে পরাজিত করেছে চৌগাছার পাতিবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে। সদরের নিমতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রিয়াংকা ও জান্নাত এবং চৌগাছার পাতিবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সুরাইয়া টাইব্রেকারে একটি করে গোল করেন। খেলার নির্ধারিত সময় গোল শূন্য ড্র থাকায় ম্যাচটি গড়ায় টাইব্রেকারে। ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ হন সদরের নিমতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আয়শা খাতুন।
এদিকে, পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যশোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা ও আইসিটি ) দেব প্রসাদ পাল। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রথিমিক শিক্ষা অফিসার তাপস কুমার অধিকারী, যশোর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মহিত কুমার নাথ , সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান মিন্টু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা লুৎফুল কবীর বিজু প্রমুখ।