যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে স্বাস্থ্য অধিদফতরের তিন কর্মকর্তার পরিদর্শন: মিলতে পারে ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক:যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সার্বিক কর্মকাণ্ড দেখলেন তিন সদস্যের একটি পরিদর্শন দল। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত তারা হাসপাতালের আন্তঃবিভাগ ও বহিঃবিভাগ পরিদর্শন করেন। এ সময় সুবিধা অসুবিধা নিয়ে রোগীদের সাথে কথা বলেন। হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. একেএম কামরুল ইসলাম বেনু জানান, পরিদর্শন দলের প্রতিবেদনের উপর নির্ভর করছে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দেয়া ‘ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ডটি’ যশোর জেনারেল হাসপাতালের ভাগ্যে জুটবে কিনা।
তিন সদস্যের পরিদর্শন দলের প্রধান ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের উপপরিচালক ডা. আব্দুস সামাদ। অন্য দুজন হলেন, খুলনা বিভাগের সহকারী স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. সাঈদ জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হু মেহেদি হাসান।
হাসপাতালের প্রশাসনিক সূত্রে জানা গেছে, পরিদর্শন দলের সদস্যরা মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সরকারি এ স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে এসে পৌঁছান, কিছু সময় পর তারা কার্যক্রম শুরু করেন। হাসপাতালের বহিঃবিভাগ, জরুরি বিভাগ, অস্ত্রোপচারকক্ষ, ফার্মেসি, বিভিন্ন ওয়ার্ড ও খাবার তৈরি করার রান্নাঘর পরিদর্শন করেন। নিয়ম-অনিয়মের বিষয়টি তারা গুরুত্বের সাথে দেখনে। পরিদর্শন টিমের সাথে ছিলেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. একেএম কামরুল ইসলাম বেনু, আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. ওয়াহিদুজ্জামান পিন্টু, ওয়ার্ড মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান ও ওবাইদুল ইসলাম কাজল। পরিদর্শনকালে তারা সুবিধা ও অসুবিধার ব্যাপারে রোগীদের সাথে কথা বলেন। পরিদর্শন দল হাসপাতালের পরিস্কার পরিচ্ছন্নের উপর বেশ গুরুত্ব দেন। পরিদর্শন দলের প্রধান ডা. আব্দুস সামাদ হাসপাতালে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাসেবার পরিবেশ অবশ্যই সন্তোষজনক। তিনি আর কোনো মন্তব্য না করে বলেন, সকল কর্মকাণ্ড দেখেছি। বিস্তারিত বিবরণ লিখিতভাবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে জানানো হবে। কথা প্রসঙ্গে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. একেএম কামরুল ইসলাম বেনু জানান, ঢাকার বাইরের স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সুনাম রয়েছে শতকরা ৮১.৫ ভাগ। আর ৮৩ ভাগ পয়েন্ট নিয়ে এগিয়ে রয়েছে জামালপুর সদর হাসপাতাল। পরিদর্শন দল যদি সন্তোষজনক প্রতিবেদন দাখিল করেন তাহলে এবারে স্বাস্থ্যমন্ত্রী কর্তৃক দেয়া ‘ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড’ পেতে পারে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল।