মোশারফ চেয়ারম্যান হত্যা মামলা> যশোরের ইছালী ইউপি চেয়ারম্যান আফজাল কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোর সদর উপজেলার ইছালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়াম্যান মোশারফ হোসেন হত্যা মামলার চার্জশিটভূক্ত আসামি চেয়ারম্যান আফজাল হোসেনকে (সাময়িক বরখাস্ত) কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। রোববার তিনি সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে বিচারক মো.বুলবুল ইসলাম শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, যশোর সদর উপজেলার ইছালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন ২০১৫ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি সকাল সোয়া ১০টার দিকে মোটরসাইকেলযোগে ইছালী ইউনিয়ন পরিষদে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে যশোর-মাগুরা সড়কের পাঁচবাড়িয়ায় সিনজেনটা ওষুধ কোম্পানির অফিসের সামনে পৌছালে অপরিচিত সন্ত্রাসীরা তাকে গুলি করে পালিয়ে যায়। পথচারিরা উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ২৬ ফেব্রুয়ারি নিহতের বড় ভাই মুক্তিযোদ্ধা আতিয়ার রহমান বাদী হয়ে অপরিচিত ব্যক্তিদের আসামি করে কোতয়ালি মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।
মামলাটি প্রথমে থানা পুলিশ পরে সিআইডি পুলিশ তদন্তের দায়িত্ব পায়। মামলার তদন্ত শেষে ১৯ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক (ওসি) আমিনুল ইসলাম।
অভিযুক্ত আসামিদের মধ্যে রয়েছেন যশোর সদরের বাহাদুরপুর গ্রামের আক্কাস আলীর ছেলে রকিবুল ইসলাম রকি, আলতাফ হোসেনর ছেলে ইমলাক হোসেন, রকিবুল ইসলামের ছেলে সাজ্জাদুল হোসেন, তালবাড়িয়া গ্রামের আবু মুছার ছেলে হজরত আলী আঁখি, বড় রাজাপুর গ্রামের এসএম আব্দুল গফুরের ছেলে ইছালী ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান এসএম আফজাল হোসেন, বিনা সরদারের ছেলে রফিক ওরফে রফিউদ্দিন সরদার ওরফে টিটো রফিক ওরফে কাহার রফিক, মৃত গোলাম রহমানের ছেলে আলতাফ হোসেন, কিসমত রাজাপুরের জয়নাল আবেদিনের ছেলে এসএমএ জব্বার, ইছালী গ্রামের মৃত বজলুর রহমানের ছেলে আজিজুর রহমান ডেভিট, গোলাম মোস্তফার ছেলে আমিনুর, মৃত মহিউদ্দিনের ছেলে জালাল, তেজরোল গ্রামের মৃত যতীন্দ্রনাথ ঘোষের ছেলে নবকুমার ঘোষ ওরফে লব ঘোষ, এনায়েতপুর গ্রামের মোকছেদ মোল্লার ছেলে খাইরুল হোসেন, রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত কিয়ামউদ্দিনের ছেলে আশরাফুল ইসলাম ফিঙ্গে, জগমহোনপুর গ্রামের মৃত অহেদ আলীর ছেলে সাবেক মেম্বর আব্দুল মজিদ, শহরের বারান্দী মোল্যাপাড়ার আব্দুল আওয়াল মিস্ত্রির ছেলে আরিফুর রহমান, উপশহরের ই-ব্লকের মিজানুর রহমানের ছেলে ফয়সাল ওরফে কোকিল, বাঘারপাড়ার কৃষ্ণনগর গ্রামের মৃত নুর আলী জোয়ার্দারের ছেলে আসকার আলী জোয়ার্দার ও মৃত ফুল মিয়া জোয়ার্দারের ছেলে সাদ্দাম হোসেন।
পরবর্তীতে আদালতের বিচারক চার্জশিটের উপর শুনানি শেষে চার্জশিট গৃহিত করে পলাতক আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। পুলিশি গ্রেফতার এড়াতে আফজাল হোসেন রোববার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। বিচারক জামিন আবেদনের শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।
উল্লেখ, গত ২৮ সেপ্টম্বর স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মাহাবুবুর রহমান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে চেয়ারম্যান আফজাল হোসেনের চেয়ারম্যান পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।