সাংবাদিক আনন্দ দাস হত্যাচেষ্টাকারীরা চিহ্নিত হয়নি, আজ জেইউজে’র মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরের সাংবাদিক আনন্দ দাস হত্যাচেষ্টাকারী কারা তা চিহ্নিত হয়নি। পুলিশ কাউকে আটকও করেনি। তবে এই ঘটনায় আনন্দ দাস বা তার পরিবারের পক্ষে কোন অভিযোগ দেয়া হয়নি কোতয়ালি থানায়।
পুলিশ বলছে আসামি আটক করার মতো তেমন কোন তথ্য পাননি তারা। কাউকে চিনতে পারেননি সাংবাদিক আনন্দ দাস। যে তিনজন তাকে ডেকে নিয়ে গিয়েছিল তাদের বিবরণ দিতেও পারছেন না তিনি।
কোতয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুূল বাশার মিয়া জানিয়েছেন, তার সাথে কথা বলে যতুটুকু জেনেছি তা হলো-বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি শংকরপুর বাস টার্মিনালের অদুরে আফরিন ফিলিং স্টেশনের সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। তিন ব্যক্তি তার কাছে যায় এবং তাদের সাথে তিনি মেডিকেল কলেজের পেছনের বটতলা দিয়ে হরিয়ানা বিলের পাশের একটি মাছের ঘেরে যান। সেখানে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়। তিনি দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন এবং পাশের মালোপাড়া র কাছের একটি মাছের ঘেরে পড়ে যান। সেখান থেকে লোকজন তাকে উদ্ধার করে জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।
সাংবাদিক আনন্দ দাসের তথ্য অনুযায়ী তিনি প্রথমে একজনকে চিনতে পেরেছেন বলে মনে করে তাদের সাথে যান। পরে মনে হয়েছে সে অচেনা। আফরিন ফিলিং স্টেশনের সামনে দিয়ে তিনি পায়ে হেঁটে বা অন্যকোন বাহনে যান কি-না তা তিনি বলছেন না। থানায়ও কোন অভিযোগ দেন নি। ফলে পুরো ঘটনাটি পুলিশের কাছে রহস্যেঘেরা। তবে পুলিশ ঘটনাটি ভালভাবে জানার চেষ্টা করছে।
এদিকে হাসপাতালে ভর্তি সাংবাদিক আনন্দ দাসের অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তিনি হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক অহেদুজ্জামান আজাদের অধিনে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তার গলা, দুই হাত এবং দুই পায়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাত আছে।
এদিকে সাংবাদিক আনন্দ দাস হত্যাচেষ্টাকারীদের আটক এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে যশোরে সাংবাদিক ইউনিয়ন (জেইউজে ) আজ শনিবার বেলা ১২টার দিকে প্রেসক্লাব যশোরের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করবে।