যশোরে দু’টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করবে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক>
বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেছেন, ঢাকা, চট্টগ্রামের পর তৃতীয় বৃহত্তম বিনিয়োগের ক্ষেত্র হিসেবে যশোরের সম্ভাবনা রয়েছে। যশোর সদর ও ঝিকরগাছায় ৯শ’ একর জমিতে দু’টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। চলতি মাসে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের সভায় দুটি অঞ্চল প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব উপস্থাপন করা হবে। সভায় প্রস্তাব অনুমোদন হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।
তিনি বলেন, অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার সকল সুযোগ সুবিধা রয়েছে যশোরে। এখানে রয়েছে দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোল, যেখান থেকে সরকার বছরে ৪ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব পেয়ে থাকে। আছে বিমানবন্দর, নওয়াপাড়া নৌবন্দর। পাশে আছে মংলা সুমদ্র বন্দর ও ভোমরা স্থলবন্দর। যশোর থেকে সড়ক যোগাযোগ রয়েছে সব জেলার সাথে। যে কারণে এই জেলায় অর্থনৈতিক অঞ্চল হলে সবাই উপকৃত হবে।
সোমবার যশোর সদর, ঝিকরগাছা ও শার্শায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার সম্ভাব্য স্থান পরিদর্শন শেষে বিকেলে সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
পবন চৌধুরী বলেন, দেশের সম্ভাবনাময় ১০০টি অঞ্চলে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে ৫টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রস্তুত সম্পন্ন হয়েছে। সেখান উৎপাদনও চালু হয়েছে। ১৫টি অর্থনৈতিক অঞ্চল চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য সরকারের কাছে পাঠানো হয়েছে। যশোরে দুটো অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করতে চাই। সদর উপজেলায় ৫শ’ একর ও ঝিকরগাছা উপজেলায় ৪শ’ একর জমি অধিগ্রহণের লক্ষ্য রয়েছে। জমি অধিগ্রহণে মালিককে বাজার দরের তিনগুণ মূল্য দেওয়া হবে। বাড়িঘর থাকলে স্থানান্তর করে তৈরি করে দেওয়া হবে। দুটো অর্থনৈতিক অঞ্চল দুই বছরের মধ্যে সম্পন্ন করতে চাই। এজন্য সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।
তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধশালী করতে হলে শিল্পের বিকাশ ঘটাতে হবে। শিল্পের জন্য জমি দিতে হবে। অর্থনৈতিক অঞ্চল হলে বিপুল সংখ্যক মানুষের কর্মসংস্থান হবে। যাদের কাছ থেকে জমি অধিগ্রহণ করা হবে, তাদের পরিবারের দক্ষ জনবলের চাকরিতে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।
মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যশোরের জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মাজেদুর রহমান খান, যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মামুন উজ জ্জামান। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপ-সচিব মলয় চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হুসাইন শওকত, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) দেবপ্রসাদ পাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) রেজায়ে রাব্বী, ঝিকরগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভুমি) জাকির হাসান প্রমুখ।