স্মার্ট কার্ড প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ল একবছর

 স্পন্দন নিউজ ডেস্ক :
স্মার্ট কার্ডআরও একবছর বাড়ল আইডিইএ (আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর এনহ্যান্সিং এক্সেস টু সার্ভিস) প্রকল্পের মেয়াদ। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নে সরকারের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) সরকারি অর্থায়নে আরও একবছর মেয়াদ বাড়াতে অনাপত্তি দিয়েছে। এর মধ্য দিয়ে চলতি ডিসেম্বরে শেষ হতে যাওয়া প্রকল্পটির মেয়াদ ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ল।

নিজস্ব অর্থায়নে প্রকল্পের বিষয়ে ইসির চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের ইআরডির সহকারী প্রধান ফয়সল জহুর মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) ইসি সচিবালয়কে এক চিঠিতে জানান, আইডিইএ প্রকল্পের ব্যয় ছাড়াই একবছর মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাবে জিওবি অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নের নিশ্চয়তা সাপেক্ষে এ বিভাগের অনাপত্তি রয়েছে।
ইসির এনআইডি উইং-এর মিডিয়া অফিসার হোসাইন আশিকুর রহমান জানান, প্রকল্পটির মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়টি তারা অবগত রয়েছেন।

বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ইসি সচিবালয়ের আওতাধীন আইডিইএ প্রকল্পটি নাগরিকদের স্মার্ট কার্ড প্রদান করে আসছে। বিশ্বব্যাংক ও জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি-ইউএনডিপি’র সহায়তায় আইডিইএ প্রকল্পের আওতায় ২০১১ সালের জুলাইয়ে ৯ কোটি ভোটারকে উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।
এই প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে স্মার্ট কার্ড  তৈরি ও বিতরণে ফ্রান্সের প্রতিষ্ঠান অবার্থুর টেকনোলজিসের সঙ্গে চুক্তি করে ইসি। প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৬ সালের জুনে। পরে এর মেয়াদ ১৮ মাস বাড়িয়ে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত করা হয়।

সম্প্রতি ফরাসি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি বাতিল হওয়ার পর প্রকল্পটিতে অর্থায়নে অনাগ্রহ দেখায় বিশ্বব্যাংক। পরে নতুন নামে সরকারি অর্থায়নে একটি প্রকল্প গ্রহণের উদ্যোগ নেয় নির্বাচন কমিশন। এরই মধ্যে ‘ভোটার তালিকা প্রস্তুত এবং জাতীয় পরিচিতি সেবা প্রদানে টেকসই অবকাঠামো উন্নয়ন‘ নামে প্রকল্প গ্রহণ করে  ডিপিপি পরিকল্পনা কমিশনে পাঠায়। এ নতুন প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয় এক হাজার ৬১২ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। এই প্রকল্প নিয়ে সরকারের পরিকল্পনা কমিশন ও অর্থমন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কয়েক দফা চিঠি চালাচালির এ পর্যায়ে সরকার নিজস্ব অর্থায়নে এক বছর মেয়াদ বাড়াতে এই অনাপত্তি দিলো।