রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রশংসা

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক :

রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রশংসা

মিয়ানমারের নির্যাতিত নাগরিকদের আশ্রয়, খাদ্য ও স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে বাংলাদেশ মানবতার কাজ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া বার্নিকাট। বিশেষ করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের প্রশংসা করেন তিনি।

বুধবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সাথে সাক্ষাতের সময় তিনি এ প্রশংসা করেন।

আশ্রিত রোহিঙ্গাদের সহায়তায় যুক্তরাষ্ট্র ১৪.৫ মিলিয়ন ডলার অনুদান দিবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া। এ সময় তিনি বলেছেন, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সেবায় বাংলাদেশের সাথে অংশ নিতে পেরে যুক্তরাষ্ট্র গর্বিত।

সাক্ষাতের সময় রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের নিন্দা করে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ভূমিকা রাখায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, রোহিঙ্গাদের মধ্যে পোলিওসহ বিভিন্ন সংক্রামক রোগের প্রাদুর্ভাব রয়েছে। এমনকি ডিপথেরিয়ার মতো বিরল রোগও দেখা গেছে এই জনগোষ্ঠীর মধ্যে। এ ধরনের সংক্রামক রোগ আমাদের জনগণের মাঝেও ছড়িয়ে পড়ার আশংকা রয়েছে।

নাসিম বলেন, এক্ষেত্রে সরকার সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করছে। ইতোমধ্যে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় ক্যাম্পে ৭১টি মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করে সরকারিভাবে ১০৭ জন চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। নার্স ও অন্যান্য সহায়ক জনবলও পর্যাপ্ত নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সংক্রামক রোগের টিকা প্রদান কার্যক্রম সেখানে জোরদার করা হয়েছে।

মন্ত্রী জানান, সরকারের গৃহীত কার্যক্রমের ফলে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে থাকা সংক্রামক রোগ দেশের অভ্যন্তরের জনগণকে আক্রান্ত করতে পারবে না।

বৈঠকে উভয় দেশের মধ্যে বিদ্যমান দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক আরো জোরদার করার ক্ষেত্রগুলোতে এক সাথে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়।

সাক্ষাতের সময় অন্যদের মধ্যে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মোঃ সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব ফয়েজ আহম্মেদ, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ হাবিবুর রহমান খান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন বীরাঙ্গনা ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীকে দেখতে যান। সেখানে তিনি কর্তব্যরত চিকিৎসকদের কাছে চিকিৎসার খোঁজখবর নেন। এসময় উপস্থিত ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর আত্মীয়স্বজনদের সাথে কথা বলেন এবং তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন।