যশোরে নওমুসলিম পার্বতী হত্যা মামলা তুলে নিতে বাদিকে হুমকি

নিজস্ব প্রতিবেদক>
যশোরে নওমুসলিম পার্বতী ওরফে নুসরাত জাহান হত্যা মামলার আসামিরা হুমকি দিয়েছে পার্বতীর মা যমুনা দাসকে। গত ২৬ ডিসেম্বর মোবাইল ফোনে যমুনাকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হুমকি দেয়া হয়।
যমুনা দাসের অভিযোগ, গত ১৯ অক্টোবর তার মেয়ে পাবর্তীকে ডেকে নিয়ে সদর উপজেলার মালঞ্চীতে হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় তিনি তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা করেন কোতয়ালি থানায়। আসামিরা হলো সদর উপজেলার মাহিদিয়া গ্রামের সিরজুল ইসলামের ছেলে রাব্বি ওরফে নিরব, একই এলাকার আজিজুল হকের ছেলে বিপুল এবং শহরের শংকরপুর এলাকার মিলন ওরফে মিলন জিহড়া। মামলাটি বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন।
অভিযোগে আরো বলেন, গত মঙ্গলবার রাত পৌন ৯টার দিকে আসামি নিরব ০১৯১৮-২৯৪২৬০ নম্বর দিয়ে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে (০১৯৩২-২৭১১২৪) কল করে এবং তাদের নামে যে হত্যা মামলা হয়েছে তা উঠিয়ে নিতে বলে। মামলা না তুললে আরো ক্ষয়ক্ষতি হবে বলে হুমকি দেয়। বর্তমানে যমুনা দাস নিরাপত্তাহীনতাই ভুগছেন। যে কোন সময় আসামিরা তাকে বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে। এই কারণে তিনি কোতয়ালি থানায় একটি জিডি করেছেন।
এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মোখলেছুজ্জামান জানিয়েছেন, আসামিরা এলাকাছাড়া ঘটনার পর থেকে। তাদের আটকের জন্য বিভিন্ন স্থানে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। আসামিরা সম্ভবত গোপন স্থানে থেকে মোবাইল ফোনে হুমকি দিচ্ছে। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে।
উল্লেখ, পাবর্তীকে মুসলিম করে নুসরাত জাহান নাম দিয়ে বিয়ে করে আসামি নিরব। ঘটনার তিনচার মাসের মাথায় গত ১৯ অক্টোবর রাত ৮টার দিকে শহরের সুধীর বাবুর পুজামন্ডপ থেকে পাবর্তীকে তুলে নিয়ে যায় আসামিরা। এরপর তাকে মালঞ্চী নামকস্থানে হত্যা করে লাশ রাস্তার ওপর ফেলে পালিয়ে যায়।